বিল গেটস এবং পুঁজির নব্য আগ্রাসন

বিল গেটস এবং পুঁজির নব্য আগ্রাসন

রবার্ট এফ কেনেডি জুনিয়র

অনুবাদ: মেহেদী হাসান

বৈশ্বিক পুঁজির সম্প্রসারণ, কেন্দ্রীভবন এবং আগ্রাসন এখন আগের যেকোনো সময়ের চাইতে অনেক বেশি। একদিকে তা অন্তর্নিহিত সংকটে জর্জরিত অন্যদিকে তা উচ্চ মুনাফাযোগ্য নতুন নতুন বিনিয়োগ ক্ষেত্রের সন্ধানে মরিয়া। যুদ্ধ, মাদক থেকে প্রাণপ্রকৃতি সর্বত্রই তার থাবা। এখন তা মানুষের শরীর, মন, খাদ্যাভ্যাস সবকিছুকে নিজের চাহিদা মতো সাজাতে ব্যগ্র। প্রযুক্তিগত বিকাশকে কাজে লাগিয়ে মানুষকে তা অসহায় গিনিপিগে পরিণত করার নানা পথ সন্ধান করছে। বিল গেটসকে কেন্দ্র করে অনুসন্ধানী এই লেখায় এর এক ভয়াবহ চিত্র পাওয়া যায়। বিল গেটস এই লেখার মূল চরিত্র হলেও ভাবা ঠিক হবে না যে, এগুলো তাঁর একক কর্মকান্ড। খেয়াল করলে দেখা যাবে বিল গেটসের সব সক্রিয়তার সাথে খাদ্য, বীজ, জ্বালানি, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ইত্যাদি ক্ষেত্রে পুঁজির বিভিন্ন বাহন সংস্থার যোগ আছে। লেখাটিতে অনেক তথ্যসূত্র ব্যবহার করে দেখানো হয়েছে যে, দাতব্য তৎপরতা, দারিদ্র বিমোচন, জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলা, খাদ্য উৎপাদন, অসুস্থতা নিরাময়ের নামে পুঁজি কীভাবে তার দখলী তৎপরতা সম্প্রসারণ করছে। মুখোশের আড়ালে বিল গেটসের ভূমিকা কী। মূল লেখার শিরোনাম: ‘Bill Gates and Neo-Feudalism: A Closer Look at Farmer Bill’। কিছুটা সংক্ষেপিত আকারে এই লেখার অনুবাদ এখানে প্রকাশ করা হলো।

বিশ্বব্যাপী লকডাউনের ফলে শুধু মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রেই এক লাখের মতো ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান দেউলিয়া হয়ে গেছে।১, ২ বিশ্বে নতুন করে এক বিলিয়ন মানুষ দারিদ্র্যের কাতারে নিমজ্জিত হয়েছে এবং ভয়াবহ খাদ্য নিরাপত্তাহীনতায় পড়েছে, যা অন্যান্য ধ্বংসাত্মক ক্ষতির পাশাপাশি আফ্রিকায় প্রতিমাসে ১০ হাজার শিশু মৃত্যুবরণ করছে।৩, ৪ আর এ সময়কালে বিল গেটসের সম্পদ বেড়েছে ২০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। তিনি এখন বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় চতুর্থ ধনকুবের, যার সম্পদের পরিমাণ ১৩৩ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।৬, ৭

বিশ্বব্যাপী জনগণের ওপর তার ক্ষমতা বিস্তার করার উদ্দেশ্যে বিল গেটস অবমূল্যায়নকৃত সম্পদ অত্যন্ত কম দামে কিনতে নতুন করে প্রাপ্ত এই অর্থ ব্যবহার করেছেন। জনস্বাস্থ্য, কারাগার বেসরকারীকরণ, অনলাইন শিক্ষা১০ এবং বৈশ্বিক যোগাযোগের১১ ওপর একচ্ছত্র নিয়ন্ত্রণ কায়েম করতে কৌশলে ডিজিটাল মুদ্রা,১২ উচ্চ প্রযুক্তিগত নজরদারি,১৩ ডেটা হার্ভেস্টিং ব্যবস্থা১৪ এবং কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার১৫ প্রচলন ঘটিয়েছেন।

একচেটিয়া নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠালিপ্সু কোনো ব্যক্তির পক্ষে সম্ভবত খাদ্য উৎপাদনের ক্ষেত্রেও আধিপত্য বিস্তারের সুযোগ ছাড়াটা খুবই কঠিন। ‘দ্য ল্যান্ড রিপোর্ট’১৬-এর নতুন সংখ্যায় প্রকাশিত তথ্যানুযায়ী, গেটস সবার অগোচরে নিজেকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে সর্ববৃহৎ কৃষিখামারের মালিক করে নিয়েছেন। গেটসের পোর্টফোলিওতে আমেরিকান কৃষিখামারের জমির পরিমাণ ২,৪২,০০০ একর১৭। এছাড়া লুইজিয়ানা, আরকানসাস, নেব্রাস্কা, অ্যারিজোনা, ফ্লোরিডা, ওয়াশিংটন এবং আরও ১৮টি রাজ্যজুড়ে প্রায় ২৭,০০০ একর১৮ অন্যান্য জমি রয়েছে।১৯

১৯৯৪ সালের শুরুতে, বৈশ্বিক কৃষি উৎপাদনের ওপর সর্বতোভাবে তার রাজত্ব বিস্তৃত করতে গেটস একটি আন্তর্জাতিক বায়োপাইরেসি প্রচারণা শুরু করেন।২০ ফলস্বরূপ, তার রাজত্ব এখন বিশাল কৃষি এলাকাজুড়ে। সেইসঙ্গে জিএমও শস্য,২১ বীজের মালিকানাস্বত্ব,২২ সিনথেটিক খাবার,২৩ খামারি রোবট ব্যবহারসহ কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার প্রকল্পগুলোয় তার হৃষ্টপুষ্ট বিনিয়োগ রয়েছে। কোকাকোলা, ইউনিলিভার,২৪ ফিলিপ মরিস (ক্র্যাফট,২৫ জেনারেল ফুডস২৬), কেল্লগ’স,২৭ প্রক্টের অ্যান্ড গেম্বেল২৮ ও আমাজন (হোল ফুড)-সহ২৯ বৃহৎ খাদ্য কোম্পানিগুলো ছাড়াও বায়ের ও মনসান্টোর৩০ মতো রাসায়নিক কীটনাশক৩১ এবং পেট্রোকেমিক্যাল সার বাজারজাতকারী বহুজাতিক করপোরেশনগুলোও এখন তার রাজত্বের অধীন।

সেইসঙ্গে জিএমও শস্য, বীজের মালিকানাস্বত্ব, সিনথেটিক খাবার, খামারি রোবট ব্যবহারসহ কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার প্রকল্পগুলোয় তার হৃষ্টপুষ্ট বিনিয়োগ রয়েছে। কোকাকোলা, ইউনিলিভার, ফিলিপ মরিস (ক্র্যাফট, জেনারেল ফুডস), কেল্লগ’স, প্রক্টের অ্যান্ড গেম্বেল ও আমাজন (হোল ফুড)-সহ বৃহৎ খাদ্য কোম্পানিগুলো ছাড়াও বায়ের ও মনসান্টোর মতো রাসায়নিক কীটনাশক এবং পেট্রোকেমিক্যাল সার বাজারজাতকারী বহুজাতিক করপোরেশনগুলোও এখন তার রাজত্বের অধীন।

যথারীতি, শীর্ষে থাকা আন্তর্জাতিক সাহায্য সংস্থাগুলোর মধ্যে ‘দ্য বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা ফাউন্ডেশন’ সবচেয়ে ধনী এবং ক্ষমতাশালী প্রতিষ্ঠান।৩২ করদাতাদের ভর্তুকিপ্রাপ্ত অনুদান হচ্ছে সংস্থাটির আয়ের অন্যতম একটি উৎস। এই অনুদানের সঙ্গে গেটস তার ব্যক্তিগত বিনিয়োগ সমন্বয় করে থাকেন। বিগ এজি,৩৩ বিগ কেমিক্যাল৩৪ এবং বিগ ফুড৩৫ প্রভৃতি কোম্পানির সঙ্গে তার অংশীদারত্বের ব্যবসা রয়েছে। এছাড়া আন্তর্জাতিক বেশকিছু এজেন্সির ওপর তার যথেষ্ট নিয়ন্ত্রণ রয়েছে। এরমধ্যে কিছু আছে তার নিজের তৈরি করা।

ডেভিড রকফেলারের অনুগ্রাহী এবং ব্যাবসায়িক অংশীদার সাবেক সেক্রেটারি অব স্টেট হেনরি কিসিঞ্জার খেয়াল করেছিলেন, ‘যারা খাদ্য সরবরাহ ব্যবস্থাকে নিয়ন্ত্রণ করেন তারাই জনগণকে নিয়ন্ত্রণ করে।’৩৬ ২০০৬ সালে, বিল অ্যান্ড মিলেন্ডা গেটস এবং রকফেলার ফাউন্ডেশন মিলে ৪২৪ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের ‘অ্যালায়েন্স ফর ও গ্রিন রেভলুশন ইন আফ্রিকা (AGRA)’৩৭ প্রকল্প চালু করে। তারা প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল যে, এই প্রকল্পের ফলে ২০২০ সাল নাগাদ ৩০ মিলিয়ন ক্ষুদ্র কৃষকের আয় বাড়বে, ফসলের উৎপাদনশীলতা দ্বিগুণ হয়ে যাবে এবং অর্ধেক জনসংখ্যার খাদ্য নিরাপত্তাহীনতা লাঘব হবে।৩৮

যে কোনো বৈশ্বিক সমস্যা সমাধানের পথ হিসেবে প্রযুক্তি এবং তার অংশীদার রাসায়নিক, ওষুধ এবং তেল ব্যবসায়ীদের কেন্দ্রে নিয়ে আসা গেটসের স্বভাবসুলভ বৈশিষ্ট্য। এটা এখন পরিষ্কার যে, খাদ্য উৎপাদনের জন্য তার ‘উদ্ভাবনী কৌশল’ ছিল দরিদ্র আফ্রিকান কৃষকদের ওপর যুক্তরাষ্ট্রের ব্যর্থ জিএমও, রাসায়নিক এবং জীবাশ্ম জ্বালানিভিত্তিক কৃষিকে জোরপূর্বক চাপিয়ে দেওয়ার একটা পন্থা।৩৯, ৪০

খাদ্য উৎপাদনের জন্য তার ‘উদ্ভাবনী কৌশল’ ছিল দরিদ্র আফ্রিকান কৃষকদের ওপর যুক্তরাষ্ট্রের ব্যর্থ জিএমও, রাসায়নিক এবং জীবাশ্ম জ্বালানিভিত্তিক কৃষিকে জোরপূর্বক চাপিয়ে দেওয়ার একটা পন্থা।

আফ্রিকান কৃষির প্রচলন ১০ হাজারেরও বেশি সময়ের পুরোনো। বিবর্তিত এই চর্চার ধরনের মধ্যে ছিল ফসলের বৈচিত্র্যকরণ, বিকেন্দ্রীকরণ, স্থায়িত্বকরণ, ব্যক্তিগত সম্পত্তি, স্বসংগঠন এবং সর্বোপরি বীজের ওপর নিয়ন্ত্রণ। স্থানীয় এই ব্যবস্থার অন্তর্নিহিত বৈশিষ্ট্য হলো ব্যক্তিগত স্বাধীনতা। কৃষক পরিবারগুলো নিজেদের সিদ্ধান্ত নিজেরাই গ্রহণ করত–নিজেদের ভূমির ওপর নিজেদের কর্তৃত্ব এবং নিজেদের ভাগ্য নিয়ন্ত্রণে নিজেরাই সার্বভৌম ছিল। লাখ লাখ ক্ষুদ্র কৃষকের হাত ধরেই ক্রমাগত উদ্ভাবন, টেকসই ফলন এবং ফসলের জীববৈচিত্র্য রক্ষা পেয়েছে।

এই প্রাচীন ব্যবস্থাকে বিনাশ করে উপনিবেশবাদের নির্মম পুনরুত্থান ঘটাতে গেটস ৪.৯ বিলিয়ন৪১ মার্কিন ডলার ব্যয় করেছিলেন। ঐতিহ্যগত ব্যবস্থার বদলে উচ্চ প্রযুক্তিনির্ভর করপোরেটাইজড এবং শিল্পায়িত কৃষি, রাসায়নিকনির্ভর একফসলি চাষ, চরম অগণতান্ত্রিক কেন্দ্রিকতা এবং উপর থেকে নিচ পর্যন্ত ক্ষমতাবানদের নিয়ন্ত্রণ চাপিয়ে দেওয়া ছিল তার উদ্দেশ্য। গেটস আফ্রিকান ক্ষুদ্র কৃষকদের খামারগুলোকে আমদানিকৃত বাণিজ্যিক বীজ,৪২ পেট্রোলিয়াম সার৪৩ এবং কীটনাশকনির্ভর৪৪ খামারে রূপান্তর করতে বাধ্য করেছিলেন।

গেটস আফ্রিকায় রাসায়নিক ও বীজের সরবরাহ চেইনের অবকাঠামো তৈরি করে। বিভিন্নভাবে সরকারগুলোর ওপর চাপ প্রয়োগ করে৪৫ যাতে তারা এ খাতে প্রচুর পরিমাণ ভর্তুকি প্রদান করে; আইন অমান্যকারীকে কঠোর শাস্তি প্রদান করে এবং কর্তৃত্ববাদী নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করে কৃষকদের বাধ্য করে তার ব্যয়বহুল পণ্যদ্রব্য কিনতে এবং তার দেওয়া কঠোর নির্দেশনাগুলো মেনে চলতে। কৃষকদের প্রথাগত পুষ্টিকর জাতীয় শস্য যেমন: জোয়ার, ভুট্টা, মিষ্টি আলু এবং কাসাভার পরিবর্তে উচ্চফলনশীল শিল্পজাত অর্থকরী ফসল যেমন: সয়া ও ভুট্টা৪৬ আবাদের জন্য প্ররোচিত করেন গেটস। এর ফলে অভিজাত পণ্য ব্যবসায়ীদের লাভের অঙ্ক বাড়তে থাকে। বিপরীতে গরিব আফ্রিকানদের বেঁচে থাকার রসদ সামান্যই অবশিষ্ট থাকে। পুষ্টি এবং উৎপাদনশীলতা দুই-ই বিপর্যস্ত হতে থাকে। প্রতিবার পেট্রোরাসায়নিক সার ব্যবহারের ফলে মাটির মধ্যে অ্যাসিডের মাত্রা বাড়তে থাকে।৪৭

কৃষকদের প্রথাগত পুষ্টিকর জাতীয় শস্য যেমন: জোয়ার, ভুট্টা, মিষ্টি আলু এবং কাসাভার পরিবর্তে উচ্চফলনশীল শিল্পজাত অর্থকরী ফসল যেমন: সয়া ও ভুট্টা আবাদের জন্য প্ররোচিত করেন গেটস। এর ফলে অভিজাত পণ্য ব্যবসায়ীদের লাভের অঙ্ক বাড়তে থাকে। বিপরীতে গরিব আফ্রিকানদের বেঁচে থাকার রসদ সামান্যই অবশিষ্ট থাকে। পুষ্টি এবং উৎপাদনশীলতা দুই-ই বিপর্যস্ত হতে থাকে। প্রতিবার পেট্রোরাসায়নিক সার ব্যবহারের ফলে মাটির মধ্যে অ্যাসিডের মাত্রা বাড়তে থাকে।

এর সঙ্গে গেটসের আফ্রিকান ভ্যাকসিন প্রকল্পের বিষয়টি উল্লেখ করা যায়। এই প্রকল্পের কখনো কোনো অভ্যন্তরীণ মূল্যায়ন হয়নি আর জনগণের কাছে জবাবদিহির তো কোনো প্রশ্নই আসে না। ২০২০ সালে ‘False Promises: The Alliance for a Green Revolution in Africa (AGRA)৪৮ শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। গেটস কার্টেলের ১৪ বছরের নানাবিধ কর্মকাণ্ডের তথ্য তাতে তুলে ধরা হয়। তথ্যানুসন্ধানে দেখা যায়, গেটস আফ্রিকার যে ১৮টি দেশকে টার্গেট করেছিলেন সেসব দেশে চরম ক্ষুধার্ত মানুষের সংখ্যা বেড়েছে প্রায় ৩০ ভাগ।৪৯ গ্রামীণ দারিদ্র্য নাটকীয় গতিতে বেড়েছে এবং ক্ষুধার্ত মানুষের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৩১ মিলিয়ন৫০

গেটসের বৃক্ষরোপণ ব্যবস্থার অধীন আফ্রিকার গ্রামীণ জনগোষ্ঠী তাদের নিজেদের ভূমিতে নিজেরা দাস হয়ে গেছেন।৫১ গেটস তার বিশাল সাম্রাজ্যে উচ্চ প্রযুক্তিগত ব্যবস্থাপনা, যান্ত্রিকীকরণ, কঠোর সময়সূচি, অসম্ভব বাজে শর্তাবলি, ঋণ এবং ভর্তুকি ইত্যাদি ব্যবস্থার প্রচলন ঘটিয়েছেন। এই হলো গেটসের ‘সবুজ বিপ্লব’।

এই কর্মকাণ্ড থেকে যারা মূলত লাভবান হয়েছে তারা হলো তার সহযোগী আন্তর্জাতিক করপোরেট অংশীদার, বিশেষ করে মনসান্টো। ২০১০ সালে গেটস ফাউন্ডেশন ট্রাস্ট ২৩ মিলিয়ন মার্কিন ডলার দিয়ে মনসান্টোর ৫ লাখ শেয়ার কিনেছিলেন (পরে সুশীলসমাজের চাপে এই শেয়ার ছেড়ে দিতে হয়)।৫২ গেটস নিজেই অবশ্য মনসান্টোর জিএমওর জন্য বিজ্ঞাপন বানিয়েছিলেন। সেখানে বিশ্বব্যাপী ক্ষুধার ‘সমাধান’ হিসেবে তিনি জিএমও-কে চিত্রায়িত করেন।৫৩

গেটসের ‘বদান্যতার’ একটি সাধারণ উদাহরণ হলো, বিভিন্ন উৎস থেকে দাতব্য কাজের জন্য জমাকৃত অর্থ তিনি আবার করপোরেশনগুলোয় বিনিয়োগ করেন। দক্ষিণ আফ্রিকায় জিএমও সয়া বিক্রির উদ্দেশ্যে তার নিজস্ব সরবরাহ চেইন তৈরি করার জন্য করদাতাদের প্রদত্ত ভর্তুকিপ্রাপ্ত ‘দাতব্য’ অনুদান ১০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার সমপরিমাণ অর্থ তিনি বিগ এজি বেহেমথ, কার্গিলকে দিয়েছেন।৫৪ আফ্রিকানরা গেটসের এই কর্মসূচির নাম দিয়েছে ‘নয়া উপনিবেশবাদ’ বা ‘করপোরেট উপনিবেশবাদ’।৫৫

সিয়াটলভিত্তিক Community Alliance for Global Justice নামের সংগঠনটি The AGRA Watch কর্মসূচির আওতায় গেটসের কৃষি এবং খাদ্যনীতির ওপর নজরদারি করে থাকে। সংগঠনটির মুখপাত্র হিদার ডে-র মতে, AGRA হলো করপোরেট দখলদারিত্বের জন্য ট্রোজান ঘোড়াবিশেষ:

“দ্য গেটস ফাউন্ডেশন এবং আগ্রা ‘কৃষক’, ‘দারিদ্র্য’, ‘পরিবেশ’ পক্ষাবলম্বনকারী হিসেবে নিজেদের দাবি করেছিল।” ডে আমাকে বলেছেন, ‘কিন্তু তাদের কার্যক্রম সবই ইউএসএইড (United States Agency for International Development)-এর মতো আন্তর্জাতিক নীতিনির্ধারক এবং মনসান্টোর মতো অতিজাতিক করপোরেশনগুলোকে ঘিরে।৫৬ তারা খাদ্য এবং জলবায়ু পরিবর্তনের সংকট থেকে সুবিধা আদায় করতে তৎপর। গেটসের সহযোগী অংশীদারদের লাভের ভান্ডার পূর্ণ করতে সংকট মোকাবিলায় সমাধানের নামে উচ্চ প্রযুক্তি, কেন্দ্রীভবন, শিল্পজাত কৃষিপণ্যের পক্ষে প্রচারণা চালায়।৫৭ এতে একদিকে পরিবেশের বিপর্যয় ত্বরান্বিত হয়, অন্যদিকে কৃষকরা হন হৃতসর্বস্ব। বায়োপাইরেসি এবং করপোরেট পাইরেসির ওপর দাঁড়ানো তাদের যাবতীয় কর্মসূচি হলো ‘হিতকারী পুঁজি’র৫৮ অন্ধকার রূপ।”

গেটসের জলবায়ু সক্রিয়তা (পরিবেশবাদী আন্দোলনের সহকর্মীদের প্রতি একটি স্মারকলিপি)

গেটস অনেক সময় তার বক্তৃতায় অলংকার ব্যবহার করে থাকেন যেমন: ‘টেকসই’, ‘জীববৈচিত্র্য’, ‘সুষ্ঠু দায়িত্বভার’, ‘জলবায়ু’ ইত্যাদি। আমি খুব অবাক হয়ে যাই এটা দেখে যে, পরিবেশবাদী আন্দোলনের সঙ্গে যুক্ত আমার বহু বন্ধু কীভাবে কীভাবে যেন গেটসের ছল-চাতুরীর খপ্পরে পড়ে যায়। জলবায়ু কর্মী হিসেবে আমার অভিজ্ঞতা ৪০ বছরের। এত বছরের মধ্যে আমি এমন একটাও প্রমাণ পাইনি যেখানে গেটস সত্যিকার অর্থে জলবায়ুর জন্য কোনো তহবিল প্রদান করেছেন। বরং জলবায়ু পরিবর্তনের যুদ্ধে গেটস ফাউন্ডেশন একটা ‘ছুপা রুস্তম’।

National Resource Defense Council, Environmental Defense Fund, Sierra Club, Greenpeace, Waterkeepers প্রভৃতি শীর্ষস্থানীয় জলবায়ু গোষ্ঠী বিশ্বের সর্ববৃহৎ মানবদরদির কাছ থেকে কার্যত কিছুই পায় না। তার বিনিয়োগের ইতিহাস সাক্ষ্য দেয় যে, জলবায়ু সংকট গেটস এবং তার অন্তরঙ্গ বন্ধুদের জন্য অযাচিত সামাজিক নিয়ন্ত্রণের একটা অজুহাত, ‘Great Reset’ অনুযায়ী নজরদারি বাড়ানোর একটা সুযোগ।৫৯ এর সঙ্গে তার বহু ধরনের জৈবপ্রযুক্তিগত বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনি বাস্তবায়নের আকাঙ্ক্ষা রয়েছে।৬০ তার মধ্যে রয়েছে: জলবায়ুর উষ্ণতা কমাতে স্ট্র্যাটোস্ফিয়ারে ক্যালসিয়াম ক্লোরাইড কিংবা সমুদ্রের পানি ছিটানো৬১, সূর্যের আলো কমাতে প্রতিফলনযোগ্য কণাভর্তি বিশাল সাইজের বেলুন বায়ুমণ্ডলে উৎক্ষেপণ করা কিংবা দক্ষিণ ফ্লোরিডায় জেনেটিক্যালি মডিফায়েড লাখ লাখ মশা ছেড়ে দেওয়া ইত্যাদি।৬২, ৬৩, ৬৪

মহামারির সময়ে যখন আমরা দুঃস্বপ্নের সময় পার করছি সে সময় গেটস ১৬১ মিলিয়ন আফ্রিকান শিশুর ওপর প্রতিবছর তার ভ্যাকসিনের পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালানোর জন্য চাপ দিয়ে যাচ্ছেন।৬৫ এটা অত্যন্ত পরিষ্কার যে, তার কাছে আমরা সবাই তার পরীক্ষাগারের গিনিপিগ।

হেনরি কিসিঞ্জারের উপদেশবাণী, ‘পুরো জাতিকে যদি নিয়ন্ত্রণ করতে চাও তেলের ওপর নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করো’৬৬ —গেটস মনেপ্রাণে আত্মস্থ করে নিয়েছেন। তার বিনিয়োগকৃত জ্বালানি প্রতিষ্ঠানগুলো কোথাও গ্রিনহাউজ গ্যাসের প্রতি তার বিরূপ মনোভাবের প্রতিফলন ঘটায় না।৬৭ বরং বৃহৎ তেল উত্তোলনকারী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে তার ঘনিষ্ঠতা বিপরীত চিত্রটিকেই তুলে ধরে। যেমন: এক্সন, শেভ্রন, কনোকোফিলিপস এবং শেল-এ উল্লেখযোগ্য অংশীদারত্বসহ হাইড্রোকার্বনে গেটসের ব্যক্তিগত বিনিয়োগ রয়েছে।৬৮ এছাড়া তিনি বিশ্বের সর্ববৃহৎ ব্যক্তিমালিকানাধীন জেট কোম্পানির মালিক।৬৯ পাশাপাশি নিকৃষ্ট কয়লাচালিত বহরে বিশাল বিনিয়োগ কয়লার প্রতি তার আকর্ষণের প্রকৃষ্ট উদাহরণও বটে। মিসিসিপি নদীর পূর্বাংশে সর্ববৃহৎ কয়লাভিত্তিক পরিবহণ ‘ক্যানাডিয়ান ন্যাশনাল রেলওয়ে’৭০ এবং ‘সিএসএক্স রিচমন্ড’সহ৭১ কয়লা পরিবহণে তার উল্লেখযোগ্য বিনিয়োগ রয়েছে।৭২

তার বিনিয়োগকৃত জ্বালানি প্রতিষ্ঠানগুলো কোথাও গ্রিনহাউজ গ্যাসের প্রতি তার বিরূপ মনোভাবের প্রতিফলন ঘটায় না। বরং বৃহৎ তেল উত্তোলনকারী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে তার ঘনিষ্ঠতা বিপরীত চিত্রটিকেই তুলে ধরে। যেমন: এক্সন, শেভ্রন, কনোকোফিলিপস এবং শেল-এ উল্লেখযোগ্য অংশীদারত্বসহ হাইড্রোকার্বনে গেটসের ব্যক্তিগত বিনিয়োগ রয়েছে। এছাড়া তিনি বিশ্বের সর্ববৃহৎ ব্যক্তিমালিকানাধীন জেট কোম্পানির মালিক। পাশাপাশি নিকৃষ্ট কয়লাচালিত বহরে বিশাল বিনিয়োগ কয়লার প্রতি তার আকর্ষণের প্রকৃষ্ট উদাহরণও বটে।

গেটসের জ্বালানিনির্ভর তথ্য পরিচর্যা, প্রক্রিয়াকরণ এবং বিশ্লেষণী কেন্দ্রগুলো বিশ্বের বিস্ফোরিত জ্বালানি চাহিদার দ্রুত বর্ধনশীল উৎসগুলোর একটি।৭৩ এবং নিঃসন্দেহে, গেটসের রাসায়নিক/শিল্পজাত কৃষি সংস্থাগুলোর অবস্থান জলবায়ুবান্ধব কর্মকাণ্ডের বিপরীত। তার জিএমও ভুট্টায় অত্যধিক পরিমাণ সার, কীটনাশক, কৃষি-রাসায়নিক উপাদান ব্যবহার করতে হয়।৭৪ এগুলো আবার জীবাশ্ম জ্বালানি এবং প্রাকৃতিক গ্যাস থেকে তৈরি। মাইকেল পলিনের ভাষ্যমতে, তিনি আফ্রিকানদের ‘তেল খেতে’৭৫ কার্যকরী উপায়ে চাপ প্রয়োগ করেছিলেন। অন্যদিকে, আফ্রিকান কৃষকরা গেটসের এই কর্মসূচির নাম দিয়েছেন ‘জলবায়ু নির্বোধ কৃষি’৭৬

২০০৮ সালে, দক্ষিণ এশিয়া এবং সাব-সাহারান ক্ষুদ্র কৃষকদের মধ্যে উচ্চফলনশীল টেকসই কৃষি প্রবর্তন করার উদ্দেশ্যে ‘বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন’ ৩০৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলার ‘অনুদান’ প্রদানের ঘোষণা দিয়েছিল।৭৭, ৭৮ জীনগত কারসাজি ঘটিয়ে উচ্চফলনশীল শস্য, খরা প্রতিরোধী খামারি গরু এবং জলবায়ু পরিবর্তন প্রতিরোধী ‘সুপার ক্রপ’-এর উন্নয়ন ও বিস্তৃতি অন্তর্ভুক্ত ছিল সংস্থাটির পরিকল্পনায়।৭৯, ৮০

অন্য কথায়, অধিক পরিমাণে ক্ষতিকারক জৈব প্রকৌশল নিয়ে কাজ করতে জলবায়ু পরিবর্তন ছিল গেটসের জন্য একটা ঢালস্বরূপ। তার কৃষিনীতির মৌলিক দৃষ্টিভঙ্গি হলো; আমাদের গ্রহের জলবায়ুকে ধ্বংস করা, লাখ লাখ প্রজাতিকে বিলুপ্ত করা, মরুকরণ করা, আমাদের পানিব্যবস্থাকে দূষিত করা এবং ‘বিষ’ধর ব্যবসায়ী কার্টেলকে লাভবান করা।৮১, ৮২

সবুজ মুখোশের আড়ালে আসলে কে, তাকে চেনা আমাদের জন্য খুব জরুরি!

জলবায়ু নিয়ে বিতর্কের কারণে নিজেদের মধ্যে যে মেরুকরণ হয়ে গেছে তাতে সংস্কার উদ্যোগ মুখ থুবড়ে পড়েছে। বিভ্রান্তির এই সুযোগে আসলে গেটস-ই লাভবান হয়েছেন। তার কার্বন ব্যাবসার মুনাফা বাড়াতে পেরেছেন। সবুজ মুখোশের আড়ালে আসলে কে, তাকে চেনা আমাদের জন্য খুব জরুরি!

বায়োপাইরেসি

জীববৈচিত্র্যভিত্তিক কৃষিবাস্তুবিদ্যার দীর্ঘ অভিজ্ঞতা এবং গবেষণা থেকে জানা যায় যে, বীজের স্বাধীনতা এবং খাদ্যের স্বাধীনতা শুধু নাগরিক মুক্তি এবং গণতন্ত্রের জন্যই নয়; বরং খাদ্য এবং খামারের ভবিষ্যতের জন্যও প্রয়োজনীয়।৮৩

হাজার বছর ধরে কৃষকের উদ্ভাবন এবং জীববৈচিত্র্য বিবর্তনের ধারায় হাত ধরাধরি করে পাশাপাশি চলেছে। তার ফলে টেকসই খাদ্য উৎপাদন এবং জীববৈচিত্র্য সবচেয়ে কার্যকরভাবে সংরক্ষিত হয়েছে। প্রমাণ হিসেবে International Assessment of Agricultural Knowledge, Science and Technology for Development (IAASTD)-এর The United Nations’ seminal 2009৮৪ প্রতিবেদনের কথাটি উল্লেখ করা যায়।৮৫ প্রতিবেদনে, ঐতিহ্যগত কৃষিব্যবস্থার ওপর ‘উন্নয়ন’ ঘটাতে গেটস/রকফেলারদের আরোপিত ‘সবুজ বিপ্লব’-এর ব্যর্থতার অকাট্য সব প্রমাণ উপস্থাপন করে দেখানো হয়েছে।

IAASTD বৈশ্বিক ক্ষুধা নিয়ে কাজ করার জন্য প্রথমসারির ৯০০ বিজ্ঞানী, কৃষিবিদ এবং গবেষককে নিয়োজিত করেছে।৮৬ তাদের প্রতিবেদনে বিস্তৃত এবং সুনির্দিষ্টভাবে উল্লেখ আছে যে, খাদ্য ঘাটতি কিংবা গ্রামীণ দারিদ্র্য দূরীকরণে জিএমও শস্য কোনো সমাধান নয়।৮৭ উপসংহারে তারা সুনির্দিষ্টভাবে বলেছেন: না গেটসের সবুজ বিপ্লব, না জিএমও–কোনোটাই বিশ্বের ক্ষুধা দূর করতে পারবে না এবং সেইসঙ্গে গ্রহের নিরাপত্তাও দিতে পারবে না।

IAASTD বৈশ্বিক ক্ষুধা নিয়ে কাজ করার জন্য প্রথমসারির ৯০০ বিজ্ঞানী, কৃষিবিদ এবং গবেষককে নিয়োজিত করেছে। তাদের প্রতিবেদনে বিস্তৃত এবং সুনির্দিষ্টভাবে উল্লেখ আছে যে, খাদ্য ঘাটতি কিংবা গ্রামীণ দারিদ্র্য দূরীকরণে জিএমও শস্য কোনো সমাধান নয়।

IAASTD-এর বিশ্লেষণে উল্লেখ আছে যে, ১৯৬০ সালে ভারত এবং মেক্সিকোয় রকফেলার ফাউন্ডেশন প্রবর্তিত সবুজ বিপ্লব ছিল ভয়াবহ বিপর্যয়কারী।৮৮ একফসলি চাষের রাসায়নিক পন্থা মাটি, পানি, জীববৈচিত্র্য ধ্বংস করে খাদ্য উৎপাদন এবং জীবন ধারণে সহায়তাকারী ভূমির সক্ষমতাকে বিপর্যস্ত করেছে। পাশাপাশি জলবায়ুর পরিবর্তনের ক্ষেত্রেও যথেষ্ট ভূমিকা রেখেছে।৮৯

IAASTD-এর বিশ্লেষণে উল্লেখ আছে যে, ১৯৬০ সালে ভারত এবং মেক্সিকোয় রকফেলার ফাউন্ডেশন প্রবর্তিত সবুজ বিপ্লব ছিল ভয়াবহ বিপর্যয়কারী।  একফসলি চাষের রাসায়নিক পন্থা মাটি, পানি, জীববৈচিত্র্য ধ্বংস করে খাদ্য উৎপাদন এবং জীবন ধারণে সহায়তাকারী ভূমির সক্ষমতাকে বিপর্যস্ত করেছে। পাশাপাশি জলবায়ুর পরিবর্তনের ক্ষেত্রেও যথেষ্ট ভূমিকা রেখেছে।

সবুজ বিপ্লব-এর নীতি খাদ্য এবং পুষ্টির নিশ্চয়তাকে করায়ত্ত করেছে এবং সরঞ্জামাদি কেনার কারণে ঋণগ্রস্ত ক্ষুদ্র কৃষককে তার ভূমি থেকে উচ্ছেদ করেছে। আইএএএসটিডি এবং আরও অসংখ্য গবেষণা দেখিয়েছে; বীজ, খাদ্য ও জ্ঞানের ওপর সার্বভৌমত্ব অর্জন করাই হলো ভবিষ্যৎ খাদ্য আর খামার নিরাপত্তার একমাত্র টেকসই পন্থা।৯০, ৯১, ৯২, ৯৩ জাতিসংঘ এবং বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় বিজ্ঞানীরা এ কথার সঙ্গে একমত পোষণ করেন যে, ঐতিহ্যবাহী কৃষিব্যবস্থা যেমন কার্যকরভাবে ক্ষুধাকে মোকাবিলা করতে পারে, জিএমও শস্য তা পারে না।৯৪

বিজ্ঞানভিত্তিক প্রমাণ এবং বাস্তবতা অস্বীকারকারী, ধর্মীয় গোঁড়ামির ন্যায় নিজস্ব চৈতন্যে অটলবিশ্বাসী বিল গেটসের ধারণা যে, প্রযুক্তির মাধ্যমে পুরো বিশ্বকে রক্ষা করার মহান দায়িত্ব ঈশ্বর তার ওপর ন্যস্ত করেছেন। ড. বিল গেটস, এম.ডি.-এর মতানুসারে, সিরিঞ্জের (সুঁই ফোটানো) মাধ্যমেই স্বাস্থ্যসুরক্ষা নিশ্চিত হতে পারে (তিনি হলেন বর্তমান বিশ্বের সর্ববৃহৎ ভ্যাকসিন উৎপাদক)৯৫

একইভাবে, কৃষক বিলের সারকথা হলো: একফসলি, রাসায়নিক পেস্টিসাইড ও সার, জিএমও শস্য, মালিকানাধীন বীজ (patented seeds) ইত্যাদির মাধ্যমেই শুধু ভালো খাদ্য পাওয়া সম্ভব— ইতোমধ্যে এগুলো তার আয়ত্তাধীন।৯৬ গেটস তার কৃষিসাম্রাজ্যের বিস্তার ঘটাতে বিজ্ঞানী এবং কৃষকদের কোনো বক্তব্যই আমলে নেননি এবং আইন, চুক্তি, ঐতিহ্য, নাগরিক অধিকার, বিজ্ঞান ও সংবেদনশীলতাকে বারবার অবজ্ঞা করেছেন।

বীজ চুরি

১০,০০০ বছর আগে যখন নিওলিথিক বিপ্লব শুরু হয় তখন থেকেই কৃষক এবং কমিউনিটিগুলো আবাদ, স্বাদ, পুষ্টি, বীজের গুণাগুণ বৃদ্ধির জন্য কাজ করেছেন।৯৭ এতে আবাদ অসাধারণভাবে বেড়েছে, ঔষধি এবং পুষ্টিগুণসমৃদ্ধ হয়েছে এবং জিনগত সহনশীলতাও বেড়েছে। যার কারণে নির্দিষ্ট মাটি ও পানির অবস্থা অনুযায়ী বীজের ফলনের উন্নতি ঘটেছে কিংবা শস্যশিকারি কীটপতঙ্গ থেকে রক্ষা করেছে।

এই সবল এবং উদ্ভাবনী জীনবৈশিষ্ট্য হঠাৎ করে গজিয়ে ওঠা কোনো বিষয় নয়। মানুষ, প্রকৃতি এবং তাদের অভাবনীয় সৃষ্টিসত্তার অসাধারণ মেলবন্ধনে উদ্ভাবিত কৃষির হাত ধরে মানুষের এই পথচলা এক হাজার প্রজন্মেরও বেশি পুরোনো। কৃষকদের নিজেদের মধ্যকার বীজ নিয়ে পারস্পরিক বোঝাপড়া, জ্ঞানের আদান-প্রদান হলো সেই ভিত্তি, যার মধ্যদিয়ে তারা জীববৈচিত্র্য এবং খাদ্যনিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পারছিল।

১৯৭৯ সাল থেকে বিশ্বব্যাংকের পৃষ্ঠপোষকতায়, কৃষিভিত্তিক গবেষণা সংস্থাগুলোর একটি কেন্দ্র হিসেবে পরিচিত The Consultative Group on International Agricultural Research (CGIAR) সারা বিশ্বের বিভিন্ন অঞ্চলের ক্ষুদ্র কৃষকদের কাছ থেকে প্রাথমিক বীজগুলো সংগ্রহ করে। সংগৃহীত বীজগুলো বিশ্বের ১৫টি সরকারি বীজ ব্যাংকে সংরক্ষণ করে।৯৮ ঐতিহ্যগত এই বীজগুলোর সম্পূর্ণ তালিকাভুক্তির উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল এই ভেবে যে, এতে সব মানুষ উপকৃত হবে এবং সহস্রাব্দব্যাপী শস্যবৈচিত্র্যকে সংরক্ষণ করা যাবে।

সংগ্রহশালায় প্রায় ৭,৬৮,৫৭৮ ধরনের বীজ রয়েছে। বিগত ১৭ বছরে, এই সংগ্রহশালার ওপর নিয়ন্ত্রণ নিতে গেটস চাতুর্যের সঙ্গে নানা ধরনের কৌশল প্রয়োগ করেছেন। বিশ্বের প্রাথমিক বীজ সংগ্রহশালার একচেটিয়া মালিকানা দখলে নিতে তার সার্বিক ক্ষমতা প্রয়োগ করছে।৯৯

২০০৩ সালের শুরুতে, রকফেলার ফাউন্ডেশনের সঙ্গে যোগসাজশে ‘দ্য বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন’ ৭২০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার পরিমাণ অর্থ ঢেলেছে সিজিআইএআর-এর বীজ ব্যাংক প্রকল্পে।১০০ সিজিআইএআর-এর বড় তহবিল জোগানদাতা হিসেবে গেটস তার অর্থনৈতিক উদ্দেশ্যে সিজিআইএআর-এর সঙ্গে যুক্ত ১৫টি স্বাধীন কেন্দ্রকে একটি কেন্দ্রের মধ্যে নিয়ে আসার জন্য চাপ প্রয়োগ করেছেন। এটি একটি অশুভ উদ্যোগ—তিনি যার নাম দিয়েছেন ‘Gates Ag One’।১০১ পরবর্তী সময়ে তিনি বিজ্ঞান গবেষণা প্রতিষ্ঠানগুলো থেকে প্রাপ্ত গবেষণা ও বীজগুলো তার ব্যবসায়িক অংশীদার বায়ের এবং কার্গিল১০২-এর মতো পণ্যভিত্তিক করপোরেশনগুলোর হাতে তুলে দেওয়ার নানাবিধ আয়োজন করেছেন। এভাবে তিনি বিশ্বব্যাপী আদিবাসী কৃষকদের উচ্চমানের বীজগুলো দখল, লুণ্ঠন এবং প্যাটেন্ট বলে আত্মসাৎ করেছেন।

Bayer Crop Science-এর সাবেক কর্মকর্তা জো কর্নেলিয়াস১০৩, বর্তমানে গেটসের এজি ওয়ান-এর একজন পরিচালক।১০৪ তার আগে তিনি ছিলেন মনসান্টোর আন্তর্জাতিক উন্নয়নের একজন পরিচালক।১০৫ ১৯৮০ সালের দিকে মনসান্টো জিএমও এবং বীজের স্বত্ব কিনে নিতে দক্ষতার পরিচয় দিয়েছিল। এ ব্যাপারে কর্নেলিয়াসের সঙ্গে যুক্ত হয়ে গেটস তার কৌশলগুলো আরও ঝালিয়ে নিয়েছেন। সহস্র বছর ধরে কৃষকের হাতে যে লাখো উদ্ভিদের জন্ম, লালনপালন ও বেড়ে ওঠা–সেই সবকিছু ধূলিসাৎ করে দিয়ে গেটস একচ্ছত্র নিয়ন্ত্রণ কায়েম করতে এখন তার তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছেন। তথ্যভান্ডার চুরির যুদ্ধে তিনি নিজেকে সেনাপতির আসনে বসিয়ে কৃষকের গড়ে তোলা উদ্ভিদের সাধারণ জিনতথ্যসূত্র চুরি করতে উঠে পড়ে লেগেছেন।

২০১৫ সালে বীজ ব্যাংকে কৃষকের সংরক্ষিত বীজের জীনগত বৈশিষ্ট্য এবং জিনক্রমের (genomes and genome sequences) মানচিত্র তৈরি করতে গেটস Diversity Seek (DivSeek)১০৬ নামে বিশ্বব্যাপী একটি প্রকল্প চালু করেন। এ প্রকল্পে তিনি নিয়মিত অর্থ সহায়তা দিয়ে থাকেন। সাধারণ মানুষের ‘নাগালের বাইরে’ নিয়ে বীজতথ্য ‘খুঁড়ে বের করতে’ ডিভসিক এবং গেটসের এজি ওয়ান অগ্রণী ভূমিকা পালন করছে। ভিন্নভাবে বললে, বীজের ওপর জনগণের মালিকানা দাবির পথটি এখন রুদ্ধ।

গেটসের অনুগ্রাহী ডিভসিক এবং এজি ওয়ান কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা আর ডিজিটাল প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে এসব বীজ স্ক্যান করে তাদের জিনগত তথ্য মানচিত্রে শ্রেণিবদ্ধ করেছে। উত্তরাধিকার সূত্রে প্রাপ্ত বৈশ্বিক বীজভান্ডারের মালিকানাস্বত্ব এভাবে তিনি কুক্ষিগত করেছেন। CRISPR১০৭ প্রযুক্তি ব্যবহার করে ঐতিহ্যগত বীজগুলোর জিন বাছাই করে যথেষ্ট রদবদল করেছেন। এমনভাবে পরিবর্তনগুলো করে নিজের নামে স্বত্ব আরোপ করেছেন যাতে কেউ তার মালিকানাস্বত্বের দাবিকে প্রতিরোধ করতে না পারে।

গেটসের অনুগ্রাহী ডিভসিক এবং এজি ওয়ান কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা আর ডিজিটাল প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে এসব বীজ স্ক্যান করে তাদের জিনগত তথ্য মানচিত্রে শ্রেণিবদ্ধ করেছে। উত্তরাধিকার সূত্রে প্রাপ্ত বৈশ্বিক বীজভান্ডারের মালিকানাস্বত্ব এভাবে তিনি কুক্ষিগত করেছেন।

গেটসের মূল উদ্দেশ্য হলো, তার সহযোগী ‘বিষচক্র’ (Poison Cartel): মনসান্টো, বায়ের, ডো/ড্যুপন্ট, ক্রমলাইফ, বিএএসএফ, সিনজেন্টা, কর্টেভা উৎপাদিত বিভিন্ন ধরনের রাসায়নিক বিষের সঙ্গে সংমিশ্রণ ঘটে এমন জিনপ্রযুক্তির মেলবন্ধন ঘটানো। ‘সবুজ বিপ্লব’১০৮ তার বাহ্যিক নাম।১০৯ সংক্ষেপে, গেটস জেনেবুঝে বীজের স্বাতন্ত্র্য এবং বৈচিত্র্য হরণ করেছেন, বিবর্তনের ইতিহাস মুছে দিয়েছেন এবং মাটির সঙ্গে বীজের সম্পর্ক নস্যাৎ করেছেন। আর এই সবকিছুকে সংকুচিত করে সাধারণ একটি ‘কোড’-এর মধ্যে নিয়ে এসেছেন। এভাবে গেটস আমাদের গ্রহের জিনবৈচিত্র্য দখল করেছেন, পুরোনোর ওপর নতুন ছাপ বসিয়েছেন, এসব কোডের স্বত্ব নিজের নামে করিয়েছেন, জনগণের বীজ চুরি করে রাসায়নিক বিষ ব্যবসায়ীগোষ্ঠীর হাতে তুলে দিয়েছেন।১১০

বিষাক্ত কৃষি এবং দ্য গেটস ফাউন্ডেশন১১১

বীজ ব্যাংক কেন্দ্রীভূত করে এবং মেধাস্বত্ব সম্পত্তি আইন নিপুণভাবে ব্যবহার করে গেটস ‘জিন উপনিবেশবাদ’-এর পক্ষে প্রচারণা শুরু করেছেন যাতে বিশ্বের আদিবাসী ও কৃষকদের হাড়ভাঙা খাটুনির দ্বারা অর্জিত বীজ এবং জ্ঞান ডাকাতি করে নিজের আওতায় আনতে পারেন।১১২

বীজ ব্যাংক কেন্দ্রীভূত করে এবং মেধাস্বত্ব সম্পত্তি আইন নিপুণভাবে ব্যবহার করে গেটস ‘জিন উপনিবেশবাদ’-এর পক্ষে প্রচারণা শুরু করেছেন যাতে বিশ্বের আদিবাসী ও কৃষকদের হাড়ভাঙা খাটুনির দ্বারা অর্জিত বীজ এবং জ্ঞান ডাকাতি করে নিজের আওতায় আনতে পারেন।

স্বাধীন কৃষি আন্দোলনের কর্মী ড. বন্দনা শিবা১১৩ আমাকে বলেছেন যে, ‘গেটসের এজি ওয়ান-এর লক্ষ্য হলো এই গ্রহের জিনবৈচিত্র্যের ওপর দখলদারিত্ব কায়েম করা।’ শিবার মতে, “গেটস কৃষকের এবং দেশের বীজ সার্বভৌমত্ব বিনষ্ট করার তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছেন। ‘গেটস এজি ওয়ান’ হলো তার অভিপ্রায়ের পরিষ্কার ঘোষণা—জীবন ও জীববৈচিত্র্য, খাদ্য ও খামার এবং আমাদের ভরণপোষণের ওপর তার রাজ্য বিস্তার করা।” একই প্রক্রিয়ায় শিবা বলেন, ‘ঈশ্বরের সৃষ্টি অপবিত্র করতে গেটস নানা ধরনের জঘন্য পৈশাচিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালাতে অর্থ ঢালছেন।’

নাগরিক, সরকার এবং খামার সংস্থাগুলো বহু আইন তৈরি করেছে। জীববৈচিত্র্য রক্ষার্থে Convention on Biological Diversity (CBD)১১৪ Ges the Cartagena Biosafety Protocol১১৫-সহ আন্তর্জাতিক চুক্তিগুলো সরকার কর্তৃক গৃহীত হয়েছে। সরকারি কর্মকর্তাদের প্রভাবিত করা, মেধাস্বত্ব সম্পত্তি আইন স্বস্বার্থে ব্যবহার করা এবং বীজ সংক্রান্ত আইন পুনর্লিখনের মাধ্যমে গেটস বিধিবদ্ধ আইন ও চুক্তিকে এড়াতে বা পদদলিত করতে সমর্থ হয়েছেন।১১৬ গ্রহের জীববৈচিত্র্য এবং কৃষিজীবী ও কৃষকের সাধারণ বীজ সম্পত্তি আন্তর্জাতিক করপোরেশনের করাল গ্রাস থেকে বাঁচাতে সরকারিভাবে গৃহীত বহুপাক্ষিক সরকারি কাঠামোগত উদ্যোগ উল্লিখিত কারণে গেটসের পক্ষে নিপুণ কৌশলে এড়ানো সম্ভবপর হয়েছে।

জেনেটিক্যালি মডিফায়েড অর্গানিজম (জিএমও)

খাদ্য নিরাপত্তাহীনতা এবং রোগ-ব্যাধি থেকে শুরু করে জলবায়ু পর্যন্ত, সবকিছুতে জিএমওর প্রতি প্রবল অনুরাগের জায়গা থেকে তার ব্যাখ্যা আছে। জিএমও ভক্তি এবং জিন সংস্করণ প্রযুক্তি পূজায় গেটস পুরোপুরি আচ্ছন্ন। ফলে, পিয়ার কর্তৃক পাহাড়সম বৈজ্ঞানিক প্রমাণ বিশ্লেষণ এবং কৃষিবিদ, পুষ্টিবিদ, বিষবিদ্যাবিশারদ ও আরও অন্য বিজ্ঞানীদের এ সংক্রান্ত সতর্কবাণী তার কানে পৌঁছাতে পারছে না।১১৭, ১১৮

জিএমও ভ্যাকসিন এবং ওষুধ তার জনস্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান অবলম্বন। কৃষিসংক্রান্ত প্রতিটি সমস্যার ক্ষেত্রে তার সমাধানও জিএমওকেন্দ্রিক। জিএমওর গবেষণা, উন্নয়ন ও সম্প্রসারণে গেটস অর্থ বিনিয়োগ করেন। উদাহরণস্বরূপ, CRISPR-এর দুজন রসায়নবিদ, ইমানুয়েল কারপেনটিয়ার এবং জেনিফার দৌদনা জিন এডিটিংয়ের জন্য ২০২০ সালের নোবেল পুরস্কার পান। তারা দুজন গবেষণা কাজের জন্য গেটসের কাছ থেকে নিয়মিত অনুদান পেয়েছেন।১১৯, ১২০

জিএমও এবং কীটনাশকের পক্ষে বিশ্বের সবচেয়ে আগ্রাসি প্রচারক মনসান্টোর সংখ্যাগরিষ্ঠ শেয়ারমালিক ছিলেন গেটস।১২১ গেটসের এজি ওয়ান-এর কেন্দ্রীয় তৎপরতা হলো, প্রায় প্রতিটি স্বাধীন বৈজ্ঞানিক গবেষণা এবং সুরক্ষা মূল্যায়নকে অবজ্ঞা করে গেটসের অপরীক্ষিত জিএমও, প্যাটেন্টকৃত বীজ, কৃত্রিম খাদ্য (সিনথেটিক) এবং পরীক্ষামূলক ওষুধ অন্ধভাবে মানুষের ওপর প্রয়োগ করা।

গেটসের এজি ওয়ান-এর কেন্দ্রীয় তৎপরতা হলো, প্রায় প্রতিটি স্বাধীন বৈজ্ঞানিক গবেষণা এবং সুরক্ষা মূল্যায়নকে অবজ্ঞা করে গেটসের অপরীক্ষিত জিএমও, প্যাটেন্টকৃত বীজ, কৃত্রিম খাদ্য (সিনথেটিক) এবং পরীক্ষামূলক ওষুধ অন্ধভাবে মানুষের ওপর প্রয়োগ করা।

মনসান্টোর সঙ্গে সংশ্লিষ্টতা, প্রক্রিয়াজাত খাদ্য,১২২ রাসায়নিক এবং তেল কোম্পানির অংশীদারত্ব, তার জনস্বাস্থ্যবিষয়ক ভণিতাকে প্রশ্নবিদ্ধ করবে–এমনটা কেউ হয়তো আশা করতে পারে; কিন্তু গণমাধ্যম সংস্থাগুলোয়ও তার বিশাল বিনিয়োগ রয়েছে (মার্চ ২০২০-এ ন্যাশন ম্যাগাজিনের খবরে প্রকাশ১২৩, ‘খবরকে যারা প্রভাবিত করতে পারে’ এমন সংবাদ সংস্থাগুলো: এনবিসি/ইউনিভার্সেল, বিবিসি, এনপিআর, দ্য গার্ডিয়ান, লা মন্ড, আল জাজিরাসহ আরও অন্যান্য সংস্থাকে গেটস ফাউন্ডেশন ২৫০ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের অনুদান দিয়েছে গেটসের পক্ষে খবরাখবর প্রকাশ নিশ্চিত করার জন্য।)১২৪, ১২৫, ১২৬। ক্ষমতালিপ্সু বিলিয়নিয়ারদের ষড়যন্ত্রমূলক লাভজনক প্রকল্প এবং ভণ্ডামির বিপক্ষে বস্তুনিষ্ঠতার ঐতিহাসিক ভূমিকার পরিবর্তে সংবাদ সংস্থাগুলো তাদের অনুসন্ধান এবং সন্দেহ থেকে গেটসকে সবসময় আড়াল করে রেখেছে।

মার্চ ২০২০-এ ন্যাশন ম্যাগাজিনের খবরে প্রকাশ, ‘খবরকে যারা প্রভাবিত করতে পারে’ এমন সংবাদ সংস্থাগুলো: এনবিসি/ইউনিভার্সেল, বিবিসি, এনপিআর, দ্য গার্ডিয়ান, লা মন্ড, আল জাজিরাসহ আরও অন্যান্য সংস্থাকে গেটস ফাউন্ডেশন ২৫০ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের অনুদান দিয়েছে গেটসের পক্ষে খবরাখবর প্রকাশ নিশ্চিত করার জন্য।

অর্থ দিয়ে কী না-হয়! গেটস এবং তার সহযোগী ওষুধ কোম্পানিগুলোর সরকারি ও বাণিজ্যিক গণমাধ্যমগুলোয় প্রতিবছর কাঁড়ি কাঁড়ি ডলার ঢালার কারণে তিনি মিডিয়াপ্রধানদের খুব প্রিয়পাত্র হয়ে উঠেছেন।১২৭ সপ্তাহান্তে তিনি শীর্ষস্থানীয় কেবল এবং নেটওয়ার্কের খবর ও শোগুলোয় ‘স্যাটেলাইট ভ্রমণ’ করতে যান। এসব শো-তে সম্মোহনী হাসি হেসে তুলতুলে নরম ধরনের প্রশ্নের জবাব দেন। এন্ডারসন কুপার (সিএনএন), ডেভিড মুইর (এবিসি), অ্যারি মেলবের (এমএসএনবিসি) এবং চাক টড (এনবিসি)-সহ অন্য মোসাহেব নিমন্ত্রণকারীদের (ব্যতিক্রম নোরাহ ও’ডন্নেল১২৮) সঙ্গে খোশামুদে মার্কা বিতর্কে লিপ্ত হন—জনস্বাস্থ্য থেকে অর্থনীতি এবং কৃষিনীতি সম্পর্কিত তার উদ্দেশ্যপূর্ণ মহৎ ভবিষ্যদ্বাণী বিনম্রভাবে উপস্থাপন করেন।১২৯, ১৩০, ১৩১, ১৩২

সরকারি নিয়ন্ত্রণ কৌশলে এড়ানো

জিএমওর বিস্তার রোধে সরকারি নিয়ন্ত্রণ প্রচেষ্টা কৌশলে এড়িয়ে যেতে গেটসের সম্পদ এবং ক্ষমতা অবশ্য তাকে সহযোগিতা করে। ২০১১ সালে ভারত যখন জেনেটিক্যালি মডিফাইড ‘বিটি কটন’১৩৩ এবং ‘রাউন্ডআপ রেডি’১৩৪ শস্য স্থগিত করার প্রক্রিয়া শুরু করে; সে সময় গেটস তার যাবতীয় ক্রিয়াকলাপ বাংলাদেশে১৩৫ স্থানান্তর করে ফেলেন। যখন ইউরোপিয়ান কোর্ট অব জাস্টিস১৩৬ রায় দিয়েছে যে, জনস্বাস্থ্য রক্ষার জন্য জিন-সংস্করণকৃত জীব এবং জিএমওগুলোকে অবশ্যই কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ করতে হবে, গেটস তখন ইউরোপীয় কমিউনিটিজুড়ে বিনিয়ন্ত্রণের পক্ষে লবিং-প্রচারণা শুরু করে দেন।১৩৭

জিএমওর বিস্তার রোধে সরকারি নিয়ন্ত্রণ প্রচেষ্টা কৌশলে এড়িয়ে যেতে গেটসের সম্পদ এবং ক্ষমতা অবশ্য তাকে সহযোগিতা করে। ২০১১ সালে ভারত যখন জেনেটিক্যালি মডিফাইড ‘বিটি কটন’ এবং ‘রাউন্ডআপ রেডি’ শস্য স্থগিত করার প্রক্রিয়া শুরু করে; সে সময় গেটস তার যাবতীয় ক্রিয়াকলাপ বাংলাদেশে স্থানান্তর করে ফেলেন।

গেটস বর্তমানে জিনসুরক্ষা আরোপকারী অনেক দেশের জিন সংস্করণ এবং জিএমও নিয়ন্ত্রণ আইনের বিরুদ্ধে আক্রমণ চালাতে বিলিয়ন ডলার খরচ করছেন। বিজ্ঞানী এবং আইনপ্রণেতারা যখন সময় চেয়ে বলছেন যে, জিন সংস্করণ এবং জিএমওগুলোর সুরক্ষার সঠিকভাবে মূল্যায়ন করার জন্য সময় অত্যন্ত অপরিহার্য, তখন গেটস ঘোষণা দিয়েছেন, ‘সময়ই প্রকৃত শত্রু।’১৩৮

উচ্চমাত্রার ঝুঁকিসম্পন্ন জীন সংস্করণের পরীক্ষা-নিরীক্ষার বিরুদ্ধে গণতান্ত্রিক বিধিনিষেধকে এড়ানোর উদ্দেশ্যে গেটসের গোপন প্রচার-প্রচারণার বিষয়টি জার্মান মানবাধিকার গোষ্ঠী Heinrich Böll Stiftung (HBS)১৩৯ ২০১৭ সালে প্রমাণসহ প্রকাশ করে দেয়। এইচবিএস মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের Freedom of Information laws-এর অধীন প্রাপ্ত ১২০০-র বেশি ই-মেইল ফাঁস করে দেয়।১৪০ নথিপত্রে দেখা যায়, জাতিসংঘের কর্মকর্তাদের দুর্নীতিগ্রস্ত করা এবং ‘জিন ড্রাইভ’ নামের বাজে ধরনের নতুন প্রযুক্তি বাতিলের আন্তর্জাতিক উদ্যোগগুলোকে গোপনে ধূলিসাৎ করার জন্য বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন বিগ এজির ছদ্মবেশে বায়োটেক গোয়েন্দা এবং প্রচার দল ভাড়া করে।১৪১, ১৪২

জিন ড্রাইভ১৪৩ হলো জিন প্রকৌশল, কৃত্রিম জীববিদ্যা এবং জিন সংস্করণের অত্যাধুনিক পর্যায়ের অনুশীলন কার্যক্রম। প্রযুক্তিটি সুপ্রজননবিদদের কাছে যেমন প্রয়োজনীয় তেমনি গেটস ও তার সিলিকন ভ্যালির অন্তরঙ্গ বন্ধুদের মতো যারা ‘ট্রান্সহিউম্যান ভবিষ্যৎ’ গড়তে চায় তাদের জন্যও পছন্দসই একটি হাতিয়ার।১৪৪

বিজ্ঞানীরা CRISPR প্রযুক্তি ব্যবহার করে জিন সংস্করণের মাধ্যমে একটি জীবকোষের ক্রোমোজমের অভ্যন্তরে ডিএনএ-কে পুনঃসজ্জিত করেন।১৪৫ এই প্রক্রিয়ায় জিন বংশগতির স্বাভাবিক নিয়ম বন্ধ করে দেওয়া হয় এবং কৃত্রিমভাবে সংযুক্ত গুণাবলি একটি পুরো গোষ্ঠীর মধ্যে সঞ্চালিত করা হয়। পরবর্তী সময়ে সমস্ত ভবিষ্যৎ প্রজন্মের মধ্যে এটি ছড়িয়ে পড়ে। একটি সমগ্র প্রজাতির জিনবৈশিষ্ট্য সংস্কার করে চিরস্থায়ীকরণের ক্ষমতা জিন সঞ্চালন (gene drives) প্রযুক্তিকে নিরঙ্কুশ ক্ষমতার জৈবিক হাতিয়ারে পরিণত করেছে।

জিন-সংস্করণ প্রযুক্তি উদ্ভিদ এবং প্রজাতির নতুন এবং উন্নত ধরন সৃষ্টি এবং স্বত্ব কিনে নিতে গেটসের ফন্দি-ফিকিরকে সহজতর করতে পারে কিংবা তিনি যে প্রজাতি চান না, সেটিকে নির্মূল করে দিতে পারে।১৪৬ এর মধ্যে তার একটা লক্ষ্য হলো, জিন ড্রাইভ ব্যবহার করে মশার মধ্যে ‘আত্মহত্যাপ্রবণ জিন’১৪৭ ঢুকিয়ে জিকা অথবা ম্যালেরিয়া ছড়ায় এমন প্রজাতির মশাকে নির্মূল করে দেওয়া।১৪৮ এটি তার টার্গেট ম্যালেরিয়া প্রকল্প-এর লক্ষ্য এবং এই প্রকল্পে দ্য গেটস ফাউন্ডেশন ৪০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার বিনিয়োগ করেছে।১৪৯ গেটসের দীর্ঘদিনের অনুগ্রহপ্রার্থী, অন্তরঙ্গ সহযোগী এবং জিন ড্রাইভের উৎসাহী নটবর ড. অ্যান্থনি ফাউচি১৫০ স্ট্যাটনিউজকে১৫১ বলেছেন, ‘ম্যালেরিয়া থেকে মুক্তি হবে একটি আশীর্বাদ।’

জিন ড্রাইভের সমালোচনায় বলা হচ্ছে যে, পুরো প্রজাতির মধ্যে পরিবর্তন কিংবা বিলুপ্ত করার ক্ষমতা এবং বাস্তুসংস্থানের বিপর্যয়কারী সংস্করণের ক্ষমতাসম্পন্ন বিধায় জিন ড্রাইভ মানব অস্তিত্বের জৈবনিরাপত্তাজনিত ঝুঁকি১৫২ বাড়িয়ে তুলছে। উপরন্তু এগুলো হলো চূড়ান্ত ধরনের জৈবিক অস্ত্র।১৫৩ মিলিটারি এবং গোয়েন্দা সংস্থাগুলোয় ভয়ংকর, অর্থলোলুপ শয়তান লোকের জন্য দানবসৈনিক১৫৪ জন্ম দেওয়া কিংবা ‘বিধ্বংসী জিন’ তৈরির ক্ষেত্রে জিন ড্রাইভ একটি শক্তিশালী হাতিয়ার। সমালোচকরা আশঙ্কা করছেন যে, একদিন হয়তো নির্দিষ্ট কোনো জাতি ‘গণহত্যাকারী জিন’ ব্যবহার করে নির্দিষ্ট কোনো প্রজাতিকে কিংবা তাদের অনাকাঙ্ক্ষিত কোনো বৈশিষ্ট্যসমূহকে সমূলে নির্মূল করে দেবে।১৫৫

জিন ড্রাইভ ফাইলে প্রকাশিত এইচবিএস-এর দাবি, এই প্রযুক্তি উন্নয়নের নেপথ্যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মিলিটারি সংস্থার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের Defense Advanced Research Projects Agency (DARPA) জিন ড্রাইভ গবেষণার জন্য প্রায় ১০০ মিলিয়ন১৫৬ মার্কিন ডলার খরচ করেছে। ড. ফাউচির National Institutes of Health (NIH)১৫৭ এবং দ্য বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন জিন ড্রাইভের প্রাথমিক বিনিয়োগকারী। দুই প্রতিষ্ঠান মিলে আত্মহত্যাপ্রবণ এবং উর্বরতাবিরোধী জিন গবেষণার জন্য ৭৫ মিলিয়ন১৫৮ মার্কিন ডলার বিনিয়োগ করেছে।

জিন ড্রাইভ ফাইলে প্রকাশিত এইচবিএস-এর দাবি, এই প্রযুক্তি উন্নয়নের নেপথ্যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মিলিটারি সংস্থার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের Defense Advanced Research Projects Agency (DARPA) জিন ড্রাইভ গবেষণার জন্য প্রায় ১০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার খরচ করেছে। ড. ফাউচির National Institutes of Health (NIH) এবং দ্য বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন জিন ড্রাইভের প্রাথমিক বিনিয়োগকারী। দুই প্রতিষ্ঠান মিলে আত্মহত্যাপ্রবণ এবং উর্বরতাবিরোধী জিন গবেষণার জন্য ৭৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার বিনিয়োগ করেছে।

জীববৈচিত্র্যকে কেন্দ্র করে ২০১৬ সালে জাতিসংঘের কানকুন সম্মেলন (COP 13) হয়।১৫৯ সম্মেলনে জিন ড্রাইভ স্থগিতের পক্ষে Heinrich Böll Foundation-সহ ১৭৯টি আন্তর্জাতিক সংগঠন ভোট প্রদান করেছিল। প্রযুক্তির পক্ষাবলম্বনকারীরা পাশাপাশি একটা চিঠি প্রচার করে যাতে লেখা ছিল: ‘সচেতনভাবে সংরক্ষণের আহ্বান: সংরক্ষণে জিন ড্রাইভের জন্য কোনো জায়গা নেই’।১৬০ পরিবেশবাদীরা, আত্মহত্যাপ্রবণ বা নির্মূলকারী জিন  ব্যাপকভাবে প্রজাতিতে ছড়িয়ে পড়লে অনিচ্ছাকৃত অনেক ঘটনার জন্ম দিতে পারার আশঙ্কায় খুব উদ্বিগ্ন।

জিন ড্রাইভ ই-মেইলের মাধ্যমে জানা গেছে, কপ ১৩ (COP 13) সিদ্ধান্তের প্রতিক্রিয়ায়, Big Pharma এবং Big Ag-এর যোগসাজশে দ্য গেটস ফাউন্ডেশন একটি পক্ষপাতদুষ্ট গোয়েন্দা প্রতিষ্ঠান ‘Emerging Ag’-কে ভাড়া করে।১৬১ জীববৈচিত্র্য রক্ষার পক্ষে এবং জিন ড্রাইভবিরোধী আন্তর্জাতিক যৌথ সংস্থাগুলোর কাজ বন্ধ করতে এবং অন্তর্ঘাতমূলক তৎপরতা চালাতে গেটস ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠানটিতে অর্থ দিয়ে থাকে।

‘জিন ড্রাইভ সম্পর্কিত জাতিসংঘের সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়াকে নস্যাৎ করার জন্য নিজেদের উদ্দেশ্য সাধনে শিক্ষাবিদদের নিয়োজিত করতে দ্য গেটস ফাউন্ডেশন উদীয়মান এজিকে ১.৬ মিলিয়ন১৬২ মার্কিন ডলার দিয়েছে। তাদের সঙ্গে গোপন আঁতাত গড়ে তুলেছে।’ ই-মেইল থেকে জানা যায়, ‘জিন ড্রাইভ স্থগিতের প্রবক্তাদের বিরুদ্ধে ঘুরে দাঁড়ানো’ গেটসের প্রচারণা তার অনুগত বিলিয়নিয়ারদের সার্বিক পরিকল্পনার অংশ ছিল।১৬৩ স্বদেশি শিল্পে জীববিজ্ঞান সম্পর্কিত ভুয়া গবেষণা করে (Biostitutes) এ ধরনের অভিযুক্ত ৬৫ জন ‘স্বতন্ত্র বিজ্ঞানী’১৬৪ এবং সরকারি কর্মকর্তাদের UN CBD Online Forum on Synthetic Biology১৬৫ নামের একটি দক্ষ অনলাইন গ্রুপে অর্থের বিনিময়ে গোপনে জড়ো করে এমার্জিং এজি। নিয়ন্ত্রণ নীতিমালার বিরুদ্ধে চক্রান্ত করা, বিজ্ঞানকে কলুষিত করা, জিন ড্রাইভবিরোধী সোচ্চার কর্মীদের বিরুদ্ধে দুর্নাম ছড়ানো, গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়াকে দুর্নীতিগ্রস্ত করা এবং পরাভূত করা প্রভৃতি ষড়যন্ত্রমূলক কর্মকাণ্ডে দৈনন্দিন দিকনির্দেশনা১৬৬ প্রদানের জন্য গেটস ফাউন্ডেশন একজন জ্যেষ্ঠ পরিচালককে নিয়োগ দিয়েছে।

প্রচারণার গতি বাড়াতে, জিন ড্রাইভের সমর্থনে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল একাডেমি অব সায়েন্স (NAS)-এর মাধ্যমে ২০১৬ সালের একটি প্রতিবেদন প্রকাশের জন্য গেটস অর্থ প্রদান করেন। এই পক্ষপাতদুষ্ট প্রতিবেদন প্রকাশে গেটস ফাউন্ডেশনের সহযোগী অর্থায়নে ছিল DARPA। প্রযুক্তিটির পক্ষে NAS রিপোর্ট প্রকাশের পর দ্য গার্ডিয়ান১৬৭ লিখেছে:

“NAS গবেষণার জন্য ইউএস ডিফেন্স রিসার্চ এজেন্সি (DARPA)-এর অর্থ প্রদান থেকে এটা পরিষ্কার যে, তারা জিন ড্রাইভ গবেষণা এবং ‘শক্তিশালী’ কৃত্রিম অণুজীবের বিকাশে সর্বত্র শক্তি নিয়োগ করবে। এতে উদ্বিগ্ন হওয়ার যথেষ্ট কারণ রয়েছে।”

ETC গ্রুপের জিম থমাসের পর্যবেক্ষণ অনুযায়ী, ‘জিন ড্রাইভ বিকাশে প্রাথমিক অর্থায়ন এবং কাঠামোবিন্যাসে মার্কিন সামরিক বাহিনীর জড়িত থাকার ফলে পুরো বিষয়টি নিয়ে যথেষ্ট সন্দেহের উদ্রেক হয়েছে।’১৬৮

ETC গ্রুপের জিম থমাসের পর্যবেক্ষণ অনুযায়ী, ‘জিন ড্রাইভ বিকাশে প্রাথমিক অর্থায়ন এবং কাঠামোবিন্যাসে মার্কিন সামরিক বাহিনীর জড়িত থাকার ফলে পুরো বিষয়টি নিয়ে যথেষ্ট সন্দেহের উদ্রেক হয়েছে।’

এমার্জিং এজির সঙ্গে সমন্বিত প্রচারণা বেগবান করার উদ্দেশ্যে দ্য গেটস ফাউন্ডেশন জাতিসংঘের তিন ‘বিশেষজ্ঞ’ সদস্যকে পকেটে পুরেছে। তারা গেটসের পুরো নিয়ন্ত্রণাধীন। কৃত্রিম জীববিদ্যায় বিশেষজ্ঞ কমিটি AHTEG (Ad Hoc Technical Expert Group)১৬৯ নামে পরিচিত প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে তারা যুক্ত। এভাবে গেটস এবং Emerging Ag সাফল্যের সঙ্গে জাতিসংঘকে দিয়ে জিন ড্রাইভ স্থগিতাদেশ স্থগিত করাতে পেরেছিল।

জিন ড্রাইভ ফাইল প্রকাশিত হওয়ার মধ্যদিয়ে গেটস ফাউন্ডেশনের মুখোশ উন্মোচিত হয়েছিল। বিপজ্জনক প্রযুক্তিবিরোধী পরিবেশবাদী আন্দোলনকে নস্যাৎ করার মধ্যদিয়ে গেটস ও তার ফাউন্ডেশন নিজেদের বেআইনি দুর্বৃত্ত কার্টেল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছে যারা সুষ্ঠু প্রক্রিয়া, গণতন্ত্র, বিজ্ঞান, আইন, জনমত, গণস্বাস্থ্য এবং সর্বোপরি মানুষের নিরাপত্তার প্রতি অশ্রদ্ধাশীল।১৭০

মানুষের স্বাস্থ্যের বিরুদ্ধে রাসায়নিক যুদ্ধ ঘোষণা

শিল্পকারখানায় উৎপাদিত হয় এমন খাবার এবং প্রক্রিয়াজাত খাবার১৭১ দীর্ঘস্থায়ী রোগ মহামারি ছড়ানোয় যথেষ্ট ভূমিকা রাখে। এই ধরনের খাদ্য জনস্বাস্থ্যের জন্য যথেষ্ট ক্ষতিকর এবং বিশ্বব্যাপী শিশুদের প্রচণ্ড দুর্বল করে দিচ্ছে। বিশ্বের সবচেয়ে পরিচিত জিএমও সম্পর্কিত সংস্থাগুলোর কাজ হলো বাতাসে কীটনাশক ছড়িয়ে দেওয়াকে সহজতর করা।১৭২ শস্যদানার ভেতরে কীটনাশক প্রতিরোধী জিন স্থাপনে মনসান্টো উদ্ভাবিত কৌশল, শস্যকে আগাছা নির্মূলকারী বিষের প্রতি সহনশীল করে। ফলে, বাতাসে মিশে যেতে পারে এমন বিষ যেমন: গ্লাইফসফেট এবং নিউনিকোটিনোয়েডস ইত্যাদি উড়োজাহাজ (বা ড্রোন)-এর সাহায্যে জমিতে (এবং খাদ্যে) প্রয়োগ করা সহজ হয়। এই কৌশল আবার বিগ এজি-কে জমিকেন্দ্রিক খামার শ্রমিক ছাঁটাইয়ের সুযোগ করে দিয়েছে।১৭৩, ১৭৪, ১৭৫

শিল্পকারখানায় উৎপাদিত হয় এমন খাবার এবং প্রক্রিয়াজাত খাবার দীর্ঘস্থায়ী রোগ মহামারি ছড়ানোয় যথেষ্ট ভূমিকা রাখে। এই ধরনের খাদ্য জনস্বাস্থ্যের জন্য যথেষ্ট ক্ষতিকর এবং বিশ্বব্যাপী শিশুদের প্রচণ্ড দুর্বল করে দিচ্ছে। বিশ্বের সবচেয়ে পরিচিত জিএমও সম্পর্কিত সংস্থাগুলোর কাজ হলো বাতাসে কীটনাশক ছড়িয়ে দেওয়াকে সহজতর করা। শস্যদানার ভেতরে কীটনাশক প্রতিরোধী জিন স্থাপনে মনসান্টো উদ্ভাবিত কৌশল, শস্যকে আগাছা নির্মূলকারী বিষের প্রতি সহনশীল করে।

১৯৪০-এর পর খেকে রাসায়নিক কীটনাশকের ব্যবহার বৃদ্ধির কারণে যুক্তরাষ্ট্রের অর্ধেকের বেশি সুরেলা পাখি অদৃশ্য হয়ে গেছে।১৭৬ বিশ্বের অধিকাংশ মৌমাছি এবং পোকামাকড়ের প্রজাতি বিলুপ্ত হয়ে গেছে।১৭৭ আবদ্ধ স্থানে কীটনাশকের অতিব্যবহারের কারণে যুক্তরাষ্ট্রে দীর্ঘস্থায়ী রোগের হার বেড়ে গেছে প্রায় ৫৪ ভাগ।১৭৮

বন্দনা শিবা উল্লেখ করেছেন, ‘প্রকৃতির বিরুদ্ধেই শুধু রাসায়নিক যুদ্ধ ঘোষণা করেননি গেটস, আমাদের শরীরের বিপাকব্যবস্থা নিয়েও তিনি ছিনিমিনি খেলছেন। তার কীটনাশক ও হার্বিসাইড আসক্তির কারণে মানবদেহের জন্য প্রয়োজনীয় অণুজীবের১৭৯ গঠনেও পরিবর্তন ঘটছে। আর তার প্রচারণার মূল উদ্দেশ্য সব মানুষকে জিএমওর আওতায় নিয়ে আসা।’

কৃত্রিম খাবার এবং গেটস

‘সুষম (খাদ্য), সুঁই এবং সমন একত্রে জারি করে মানুষকে বশে রাখা দীর্ঘদিনের কৌশল। এর মাধ্যমে ক্ষমতাবান কর্তৃপক্ষের আকাঙ্ক্ষিত এমন এক মনস্তাত্ত্বিক বৈশিষ্ট্য এবং বিশ্বাস তৈরি করা সম্ভব যেখানে ক্ষমতাকাঠামোর বিরুদ্ধে কোনো গুরুত্বপূর্ণ সমালোচনা একরকম অসম্ভব মনে হবে।’ —বার্ট্রান্ড রাসেল (১৯৫২)১৮০

গেটস সিনথেটিক মাংসকে১৮১ বলছেন, ‘খাদ্যের ভবিষ্যৎ’। মুরগি, ডিম এবং পরজীবী অণুজীব থেকে খাবার উৎপাদনকারী কোম্পানিতে তার বিনিয়োগ আছে। মুরগি থেকে মাছ পর্যন্ত ১০০টিরও বেশি জীব প্রক্সিসের ওপর তার মালিকানাস্বত্ব রয়েছে বা প্রক্রিয়াধীন। Motif Food Works-এ তার উল্লেখযোগ্য বিনিয়োগ রয়েছে।১৮২ কোম্পানিটি বিভিন্ন ধরনের কৃত্রিম ল্যাবরেটরি খাদ্য এবং খাদ্য উপাদান তৈরি করে থাকে। ‘প্যান্ডেমিক প্রফিটিয়ার ক্লাব’ বলে পরিচিত দলের সদস্য মার্ক জুকারবার্গ, মাইকেল ব্লুমবার্গ, জেফ বেজোসের মতো বিলিয়নিয়ারদের সঙ্গে মিলে ২০১৫ সালে তিনি Breakthrough Energy১৮৩ নামে একটি প্রতিষ্ঠান তৈরি করেন।১৮৪ উল্লেখ্য, লকডাউনের সময় থেকে মার্কিন বিলিয়নিয়ারদের সম্পদ যখন বেড়েছে ১.১ ট্রিলিয়ন মার্কিন ডলার তখন যুক্তরাষ্ট্রে দরিদ্রদের সংখ্যা বেড়েছে ৮ মিলিয়ন।১৮৫, ১৮৬ ‘কার্গিল এবং টাইসন ফুড’১৮৭-এর সঙ্গেও তাদের পুঁজির সম্পর্ক। বিয়োন্ড মিট১৮৮ প্ল্যান্টভিত্তিক জিএমও এবং কীটনাশকসমৃদ্ধ মুরগি টাকোস তৈরি করে। গেটস এবং তার বিলিয়নিয়ার বয়েজ ক্লাবের সদস্যদের বড় পদ রয়েছে Impossible Foods১৮৯-এ। তাপ ও চাপে সিনথেটিক বার্গার এবং জিএমও সয়া থেকে জার্মান Brätwurst ধরনের সসেজ তৈরি করে এই প্রতিষ্ঠানগুলো।১৯০ গবেষণাগারে পরীক্ষা করে দেখা গেছে, এই কোম্পানিগুলোর তৈরি নকল মাংসের মধ্যে সাধারণের চেয়ে ১১ গুণ বেশি পরিমাণের গ্লাইফসেট রয়েছে।১৯১ Soil4Climate১৯২-এর সেথ ইজকান লিখেছে১৯৩:

“Impossible Food-কে ‘Impossible Patent’ নামে ডাকা উচিত। এটা খাদ্য নয়; এটা সফটওয়্যার, বুদ্ধিবৃত্তিক সম্পত্তি। আসলে, Impossible Burger-এর ১৪ কামড়ে ১৪টি প্যাটেন্ট। এটা হলো আইফুড (IFood)। পরবর্তী খুনি app.। শুধু পছন্দ অনুযায়ী স্বাদ ডাউনলোড করে নাও। শ্রেষ্ঠ বিনিয়োগকারী বিল গেটসের কাছে এটিই বোধহয় তাদের চাওয়া।”

বিয়োন্ড মিট প্ল্যান্টভিত্তিক জিএমও এবং কীটনাশকসমৃদ্ধ মুরগি টাকোস তৈরি করে। গেটস এবং তার বিলিয়নিয়ার বয়েজ ক্লাবের সদস্যদের বড় পদ রয়েছে Impossible Foods-এ। তাপ ও চাপে সিনথেটিক বার্গার এবং জিএমও সয়া থেকে জার্মান Brätwurst ধরনের সসেজ তৈরি করে এই প্রতিষ্ঠানগুলো। গবেষণাগারে পরীক্ষা করে দেখা গেছে, এই কোম্পানিগুলোর তৈরি নকল মাংসের মধ্যে সাধারণের চেয়ে ১১ গুণ বেশি পরিমাণের গ্লাইফসেট রয়েছে।

Breakthrough-এর আরেকটি উদ্যোগ Memphis Meats১৯৪। প্রতিষ্ঠানটি বাছুরের রক্তের রাসায়নিক উপাদান থেকে কৃত্রিম মাংস তৈরি করে। ব্লুমবার্গের ধারণা১৯৫: ২০২৬ সাল নাগাদ সিনথেটিক মাংসের রাজস্ব ৩.৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলারে উন্নীত হবে।১৯৬

‘Breakthrough Bros’ ২০২০ সালের জুনে Biomilq১৯৭-এ ৩.৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার বিনিয়োগ করে। কোম্পানিটি ‘কৃত্রিম উপায়ে বিকশিত স্তন গ্রন্থি এবং এপিথেলিয়াল কোষ’ থেকে কৃত্রিম বুকের দুধ উৎপাদন করে। সংক্রামক রোগ থেকে শিশুকে রক্ষা করতে মায়ের বুকের দুধে রোগপ্রতিরোধী যেসব জৈব উপাদান বা এন্টিবডি থাকে কৃত্রিম এই দুধে সেসব থাকবে কি না, কিংবা, ভবিষ্যৎ প্রজন্মের বায়োমিল্ক শিশুদের তার জিএমও ভ্যাকসিনের বহরের ওপর নির্ভরশীল হতে হবে কি না, গেটস তার কোনো ব্যাখ্যা দেননি।১৯৮

বন্দনা শিবা বিল গেটস দ্বারা প্রভাবিত নন। তিনি বলছেন, ‘ভালো, স্বাস্থ্যসম্মত প্রোটিন এবং ফ্যাট থেকে বঞ্চিত করে গেটস তার গবেষণাগারের উৎপাদিত কৃত্রিম আবর্জনা আমাদের খাওয়াতে চান।’

গেটস জাতিসংঘের সহায়ক প্রতিষ্ঠান GAVI-এর প্রতিষ্ঠাতা এবং সর্বোচ্চ অনুদানদাতা।১৯৯ গেটস তার বাজে ধরনের যাবতীয় রাসায়নিক পদার্থ, মেডিকেল এবং বিচিত্র খাদ্য সমাহার চাপিয়ে দিতে এবং আফ্রিকা ও এশিয়ার মানুষের ওপর তার জঘন্য ধরনের ভ্যাকসিন পরীক্ষা-নিরীক্ষা২০০ চালাতে এই প্রতিষ্ঠানটি তৈরি করেছেন। এছাড়া জাতিসংঘের খাদ্য এবং কৃষি সংস্থা (FAO)২০১-কে দ্য গেটস ফাউন্ডেশন নিয়মিত অনুদান দিয়ে থাকে।২০২ ২০১৪ সালে গরিব মানুষের মধ্যে খাদ্য হিসেবে পোকার প্রোটিনের ব্যবহার বাড়ানোর জন্য চাপ প্রয়োগ করতে সংস্থাটিকে ৮৫০ হাজার২০৩ মার্কিন ডলার দিয়েছেন। ভিমরুল, গুবরে পোকা, ঝিঁঝি পোকা এবং আরও অন্যান্য পোকামাকড় ‘অব্যবহৃত’ খাদ্যের উৎস হিসেবে চিহ্নিত করেছে GAVI। গেটসের নির্দেশনা মেনে GAVI আশাবাদী এই ভেবে যে, দরিদ্র এবং অপুষ্ট শিশুদের জন্য পোকামাকড় খুব শীঘ্রই গুরুত্বপূর্ণ বিকল্প খাদ্য হিসেবে ব্যবহৃত হবে।

দ্য গেটস ফাউন্ডেশন দক্ষিণ আফ্রিকান একটি কোম্পানিতে (AgriProtein)২০৪ বিনিয়োগ করেছে। কোম্পানিটি চাষকরা শুককীট থেকে ভোজ্য তেল তৈরি করে। কসাইখানা, মিউনিসিপ্যাল ও গৃহস্থালি বর্জ্যের সঙ্গে বিলিয়ন বিলিয়ন সাধারণ মাছি কোম্পানির কারখানায় পালা হয় এবং প্রতিদিন মাছির ডিম থেকে ২২ টন শুককীট সংগ্রহ করা হয়। শুককীট যেহেতু খাদ্য হিসেবে এখনো অপরিচিত তাই গেটস তার অংশীদারি মাংস বিক্রেতা প্রতিষ্ঠানের কাছে শুককীট বিক্রি করেন।২০৫ Tyson food তার গাদাগাদি করে রাখা খাঁচাবদ্ধ মুরগির খাদ্য হিসেবে সেসব কেনে।২০৬ ৫৮ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের বহুজাতিক কোম্পানির মালিক Unilever কেনে বৃহৎ মাছের খামারের জন্য।২০৭ এরা একদিকে গেটস-এর ব্যাবসায়িক অংশীদার অন্যদিকে আবার তার শুককীট ক্রেতা। এরাই আবার গেটসের আজব ধরনের দাতব্য কাজের সুফলভোগী।

যথারীতি, নকল খাদ্য কর্মসূচি বাস্তবায়ন করার উদ্দেশ্যে গেটস তার নিয়ন্ত্রিত আন্তর্জাতিক সংস্থা এবং অংশীদারি বৃহৎ করপোরেশনগুলোকে একত্রিত করেন। উল্লেখ্য, গেটসের অনুদানপ্রাপ্ত World Economic Forum (WEF)২০৮, বিশ্ব মানবতার রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা এবং ছক সাজাতে দাভোস-এ প্রতিবছর বিশ্বের বিলিয়নিয়ারদের সম্মেলন করে।

‘Covid-19: The Great Reset’ নামে WEF-এর চেয়ারম্যান, ক্লাউস স্কোয়াব২০৯-এর একটি প্রভাবশালী বই২১০ আছে। বিশ্বের অধিকাংশ নির্বাচিত সরকারি কর্মকর্তা থেকে প্রাদেশিক পরিচালক পর্যন্ত সবার কাছে WEF তার এই বইটি ই-মেইল করে দিয়েছে।২১১ কোভিড সংকটকে কাজে লাগিয়ে বিভ্রান্ত, আতঙ্কিত ও অনুগত মানবতার ওপর কর্তৃত্ববাদী নিয়ন্ত্রণ, ব্যাপক নজরদারি, দমনমূলক নয়া অর্থনৈতিক মডেল এবং এককেন্দ্রিক বিশ্ব সরকারব্যবস্থাকে ক্ষমতাবানরা কীভাবে চাপিয়ে দেবে তারই দিকনির্দেশনা রয়েছে স্কোয়াবের বইটিতে। The Great Reset হলো কোভিড-১৯ মহামারি-পরবর্তী WEF-এর পরিকল্পনামাফিক নিয়ন্ত্রিত বৈশ্বিক নয়া অর্থনীতির পুনর্গঠনের দলিল।

‘Covid-19: The Great Reset’ নামে WEF-এর চেয়ারম্যান, ক্লাউস স্কোয়াব-এর একটি প্রভাবশালী বই আছে। বিশ্বের অধিকাংশ নির্বাচিত সরকারি কর্মকর্তা থেকে প্রাদেশিক পরিচালক পর্যন্ত সবার কাছে WEF তার এই বইটি ই-মেইল করে দিয়েছে। কোভিড সংকটকে কাজে লাগিয়ে বিভ্রান্ত, আতঙ্কিত ও অনুগত মানবতার ওপর কর্তৃত্ববাদী নিয়ন্ত্রণ, ব্যাপক নজরদারি, দমনমূলক নয়া অর্থনৈতিক মডেল এবং এককেন্দ্রিক বিশ্ব সরকারব্যবস্থাকে ক্ষমতাবানরা কীভাবে চাপিয়ে দেবে তারই দিকনির্দেশনা রয়েছে স্কোয়াবের বইটিতে।

মে ২০২০, WEF-এর সম্মেলনে স্কোয়াব এবং প্রিন্স চার্লস মিলে ‘দ্য গ্রেট রিসেট’-এর মোড়ক উন্মোচন করে।২১২ এটি হলো বিশ্বব্যাপী নিরঙ্কুশ আধিপত্য এবং আন্তর্জাতিক কুশীলব প্ররোচিত কর্তৃত্ববাদী নজরদারিমূলক রাষ্ট্র সাজানোর প্রক্রিয়া। বিপর্যস্ত জনগণকে বাগে আনতে, মুষ্টিমেয় লোকের হাতে সম্পদ কুক্ষিগত করতে, অভিজাত বিলিয়নিয়ারদের স্বার্থ পরিপুষ্ট করাই হলো এই প্রক্রিয়ার মূল দিক। বৈশ্বিক খাদ্য নীতিকে ‘পুনর্গঠন’ করতে ‘Eat Forum’২১৩ নামের একটি সংস্থার সঙ্গে WEF অংশীদারি সম্পর্ক গড়ে তুলেছে এবং একযোগে প্রচার চালাচ্ছে। ইট ফোরাম ‘খাদ্যের জন্য দাভোস’ ব্যানারে প্রচারণা চালায়।

ইট ফোরাম-এর সহযোগী প্রতিষ্ঠাতা হলো Welcome Trust।২১৪ এই সংস্থার প্রতিষ্ঠা এবং অর্থ অনুদানের সঙ্গে ভ্যাকসিন নির্মাতা গ্ল্যাক্সোস্মিথক্লাইন কৌশলগতভাবে জড়িত, যার সঙ্গে আবার গেটসের বড় আকারের বিনিয়োগ সম্পর্ক রয়েছে।২১৫ ইট-এর বড় উদ্যোগটির নাম FReSH২১৬। খাদ্যব্যবস্থার রূপান্তর ঘটানোর কাজ ত্বরান্বিত করতে এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে সংস্থাটি (Eat) বলে থাকে। এই প্রকল্পের আরও অংশীদার হলো: বায়ের, কারগিল, সিনজেন্টা, ইউনিলিভার এবং প্রযুক্তিদানব গুগল।২১৭

‘ব্যাবসা ও শিল্পে মূল্য সংযোজন’ এবং ‘রাজনৈতিক কর্মসূচি প্রস্তুত’ করতে The Eat Forum২১৮ এসব কোম্পানির সঙ্গে কাজ করে। অধিকন্তু, মুনাফাভোগী এই সংস্থাটি ইউরোপ, আফ্রিকা, এশিয়া, উত্তর আমেরিকা, দক্ষিণ আমেরিকা ও অস্ট্রেলিয়ার কমপক্ষে ৪০টি নগর সরকারের সঙ্গে একযোগে কাজ করে। এছাড়াও সংস্থাটি গেটসের অনুদানপ্রাপ্ত জাতিসংঘের শিশু তহবিল (UNICEF)২১৯-এর ‘নয়া সুষম খাদ্যের নির্দেশনা তৈরি’ এবং টেকসই উন্নয়ন উদ্যোগ সংক্রান্ত কর্মসূচি তৈরিতে পরামর্শ দিয়ে থাকে।

ব্রাসেলস বিশ্ববিদ্যালয়ের খাদ্যবিজ্ঞান ও জৈবপ্রযুক্তির অধ্যাপক ফ্রেডরিক লিরোয়ের২২০ ভাষ্যানুযায়ী, Eat ইমপসিবল ফুডসহ বৃহৎ নকল মাংস কোম্পানি এবং অন্যান্য জৈবপ্রযুক্তি সম্পর্কিত কোম্পানিগুলোর সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করছে। সংস্থাটি স্বাস্থ্যসম্মত পুষ্টিকর খাদ্যের পরিবর্তে গেটসের জিন প্রতিস্থাপিত গবেষণাগারের কৃত্রিম খাদ্য খাওয়ানোর কর্মসূচি বাস্তবায়নের কাজে লিপ্ত।

দ্য ডিফেন্ডার-কে লিরয় বলেছেন২২১, ‘তারা বোঝাতে চায় এসব খাদ্য স্বাস্থ্যকর এবং টেকসই—আসলে মোটেও তা নয়।’ জিএমও মাংসের দ্বারা শিশুখাদ্য চাহিদা পূরণ এবং জলবায়ু সংকট কমানো বিষয়ে গেটসের দীর্ঘদিনের প্রচারণা নিয়ে ড. শিবা তামাশা করে বলেছেন:

‘গেটস এবং তার অনুগ্রাহী জৈবপ্রকৌশলী বন্ধুরা যেমন বলতে চায়, আসল বিষয়টি সেরকম নয়। গবেষণাগারের প্রক্রিয়াজাত নকল খাদ্য মানুষের অনাহার দূর করার জন্যও নয় কিংবা জলবায়ু সুরক্ষার জন্যও নয়; আমাদের খাদ্যের ওপর মালিকানাস্বত্ব দখল করাই হলো তার মূল উদ্দেশ্য। Eat প্রস্তাবিত সুষম খাদ্য মানুষের প্রয়োজনীয় পুষ্টির সঙ্গে কোনোভাবেই সম্পর্কিত নয়, এটা সম্পূর্ণতই বৃহৎ ব্যাবসা এবং খাদ্যব্যবস্থাকে করপোরেটগুলোর দখলে নিয়ে যাওয়ার পাঁয়তারা।’

গবেষণাগারের প্রক্রিয়াজাত নকল খাদ্য মানুষের অনাহার দূর করার জন্যও নয় কিংবা জলবায়ু সুরক্ষার জন্যও নয়; আমাদের খাদ্যের ওপর মালিকানাস্বত্ব দখল করাই হলো তার মূল উদ্দেশ্য। Eat প্রস্তাবিত সুষম খাদ্য মানুষের প্রয়োজনীয় পুষ্টির সঙ্গে কোনোভাবেই সম্পর্কিত নয়, এটা সম্পূর্ণতই বৃহৎ ব্যাবসা এবং খাদ্যব্যবস্থাকে করপোরেটগুলোর দখলে নিয়ে যাওয়ার পাঁয়তারা।’

লেরয় আরও বলেন২২২:

‘ইউনিলিভার, বায়ের এবং অন্য ওষুধ কোম্পানিগুলো হলো মূলত রাসায়নিক প্রক্রিয়াজাতকারী প্রতিষ্ঠান। এদের মধ্যে বেশকিছু কোম্পানি রয়েছে যেগুলো নতুন ধরনের এই খাদ্যব্যবস্থা থেকে সর্বোচ্চ মুনাফাশিকারি হিসেবে ভালো অবস্থানে রয়েছে। বৈশ্বিক পরিসরে গবেষণাগারের খাদ্য তৈরিতে প্রয়োজনীয় রাসায়নিক পদার্থ এবং উপাদান প্রক্রিয়াজাতকরণ ব্যবসার সঙ্গে এরা সংশ্লিষ্ট।

শক্তিপরিপূরক খাদ্য

কৃত্রিম এবং জিএমও খাবারে মানুষের স্বাস্থ্যের প্রয়োজনীয় সূক্ষ্ম পুষ্টিগুণ খুবই কম থাকে। উদাহরণস্বরূপ, গ্লাইফসেট নামক রাসায়নিক যৌগের কাজ উল্লেখ করা যায়। জীবনের স্বাভাবিক বৃদ্ধি নষ্ট করে এটি আগাছা নিধন করে। এই হার্বিসাইড খামারে ব্যবহারের কারণে প্রাকৃতিক খাদ্যের তুলনায় খামারি খাদ্যে পুষ্টিগুণ সিকিভাগই অবশিষ্ট থাকে।২২৩

গেটসের প্রক্রিয়াজাত, কৃত্রিম এবং জিএমও খাবার গ্রহণে মানুষের পেট ভরবে ঠিকই; কিন্তু পুষ্টিবিজ্ঞান অনুযায়ী অপুষ্ট থাকবে। গেটসের কাছে এর ত্বরিত সমাধান রয়েছে। প্রযুক্তি ক্রয় এবং Roche ও Kraft২২৪ ধরনের কোম্পানির সঙ্গে যৌথ বিনিয়োগ হলো আপাত সমাধান। খনিজ ও ভিটামিন মিশিয়ে কৃত্রিম পরিপূরক খাদ্য তৈরি করে এই প্রতিষ্ঠানগুলো। পাশাপাশি তিনি উন্নয়নশীল দেশগুলোয় পরিপূরক খাদ্য সংক্রান্ত আইন জারি করতে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন।২২৫ এ আইন ঐতিহ্যগত এবং জৈব কৃষিনির্ভর কৃষকের সর্বনাশ করে কীটনাশক এবং প্রক্রিয়াজাত খাদ্য কোম্পানিগুলোকে লাভবান করবে। রোস, ক্র্যাফট, জেনারেল ফুডস ও ফিলিপ মরিস-এর মতো মার্কিন কোম্পানিগুলো ইতোমধ্যে প্রক্রিয়াজাত পনির এবং সিরিয়াল-এর মধ্যে পরিপূরক উপাদানের মিশেল ঘটিয়েছে।২২৬ এরা আবার গেটস রথের সারথী।

আমি আমার কর্মজীবনের শুরুতে এক বড় খাদ্য-প্রতারককে নানাবিধ কুকর্ম করতে দেখেছিলাম। ২০০৩-এ, আমি তখন হাজার খানেক ক্ষুদ্র পোলিশ খামারির প্রতিনিধিত্ব করছিলাম। শূকরের মাংস প্রক্রিয়াজাতকারী ‍‘স্মিথফিল্ড ফুডস’-কে পোল্যান্ড থেকে তাড়িয়ে দেওয়ার জন্য হাজার হাজার ক্ষুদ্র পোলিশ কৃষক লড়াই চালিয়েছিলেন।২২৭ পোল্যান্ডের উপ-প্রধানমন্ত্রী আন্দ্রেএজ লেপ্পার আমাকে বলেছিলেন, স্মিথফিল্ডের কর্মকর্তারা তাকে এক মিলিয়ন মার্কিন ডলার ঘুস দিতে চেয়েছিল। কসাইখানায় লেজারচালিত কলসহ স্বাস্থ্যসম্মত হাই-টেক প্রযুক্তি স্থাপন আইনের পক্ষে তাকে সমর্থন করার জন্য এই ঘুস দিতে চাওয়া। স্মিথফিল্ড জানত যে, এ আইন হলে পোল্যান্ডের নামকরা কিয়েলবাসা সসেজ উৎপাদনের সঙ্গে জড়িত ২৬০০ কসাই পরিবার ক্ষতিগ্রস্ত হবে। অসম্ভব দামি লেজারের একমাত্র ব্যবহারকারী হিসেবে স্মিথফিল্ডের তখন পোল্যান্ডের সব কসাইখানা, উৎপাদন ইত্যাদির ওপর একচেটিয়া আধিপত্য তৈরি হতো এবং তার উৎপাদিত আকর্ষণীয় কিয়েলবাসার শতভাগ লাভজনক রপ্তানি হতো।

স্মিথফিল্ডের থলে থেকে গেটস খাদ্য পরিপূরক আইন বের করে নিয়েছিলেন। সব খাদ্য শক্তিশালী করা উচিত ধরনের আফ্রিকায় আইনি আদেশের কারণে Kraft পণ্য যেমন: চিজ হুইজ এবং আমেরিকান সিঙ্গেলস এবং এর ভিটামিন পরিপূরক কুল-এইড এবং ট্যাং বাজারে জায়গা করে নেয়।২২৮ স্থানীয়ভাবে উৎপাদিত ছাগলের দুধ, পনির গ্রামীণ বাজার থেকে উধাও হওয়ার বন্দোবস্ত করা হয়েছিল। অন্যদিকে, এর সঙ্গে যুক্ত আফ্রিকান ক্ষুদ্র কৃষকদের ব্যাবসা থেকে পাততাড়ি গুটানোর সব আয়োজন সম্পন্ন করা হয়েছিল।

চিজ হুইজ এবং আমেরিকান সিঙ্গেলস এবং এর ভিটামিন পরিপূরক কুল-এইড এবং ট্যাং বাজারে জায়গা করে নেয়। স্থানীয়ভাবে উৎপাদিত ছাগলের দুধ, পনির গ্রামীণ বাজার থেকে উধাও হওয়ার বন্দোবস্ত করা হয়েছিল। অন্যদিকে, এর সঙ্গে যুক্ত আফ্রিকান ক্ষুদ্র কৃষকদের ব্যাবসা থেকে পাততাড়ি গুটানোর সব আয়োজন সম্পন্ন করা হয়েছিল।

বাধ্যতামূলক পরিপূরক খাদ্য কর্মসূচি প্রচারণা চালাতে গেটস তার প্রয়োজনীয় প্রায় সরকারি একটি সংস্থা তৈরি করেছেন–The Global Alliance for Improved Nutrition (GAIN)২২৯। এর কাজ, টার্গেট করা দেশগুলোয় প্রক্রিয়াজাত ও পরিপূরক খাদ্যসংক্রান্ত অনুকূল কর, শুল্কহার নির্ধারণ এবং নতুন পণ্যের মূল্যায়ন কাজ ত্বরান্বিত করতে সরকারের সঙ্গে লবিং করা। গেটসের ব্যবসায়ী অংশীদার বহুজাতিক খাদ্য কোম্পানিগুলোকে লবিংয়ে সহযোগিতা করা। এছাড়া গেটসের GAIN কনসোর্টিয়াম স্থানীয় সরকারের পেছনে টাকা ঢালে যেন পরিপূরক খাদ্যের পক্ষে সরকার বড় আকারের প্রচারণা চালায় এবং জনগণের মধ্যে পরিপূরক খাদ্যের চাহিদা বাড়ে।২৩০ কিংবা, ঘুস দিয়ে করপোরেট খাদ্যপণ্য সরকারি ‘অনুমোদিত সিলমোহর’ আদায় করতে পারে।২৩১

গেটস, গাভি এবং গেইন

GAVI২৩২ হলো বিলিয়ন ডলারের বিশ্বব্যাপী ভ্যাকসিন কর্মসূচি। এর পর করা হয়েছে GAIN প্রকল্পের নীলনকশা। জনস্বাস্থ্য সংস্থার মুখোশের আড়ালে ‘গাভি’ সরকারি ও বেসরকারি শিল্প সংস্থাগুলোকে সাফল্যের সঙ্গে একত্রিত করেছে। তাদের অরক্ষিত লাভজনক মজুত, পরীক্ষাধীন কিংবা নিন্দিত এবং কখনো কখনো প্রাণঘাতী ভ্যাকসিন উন্নয়নশীল দেশগুলোর দরিদ্র শিশুদের টিকা দেওয়ার উদ্দেশ্যে এই কর্মসূচি চালু করা হয়েছে।২৩৩, ২৩৪

গাভি মডেল অনুসরণ করে গেটস ৭০ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের গেইন কর্মসূচি শুরু করেন,২৩৫ জাতিসংঘের সাধারণ সম্মেলনে শিশুদের ওপর বিশেষ সেশনকে কেন্দ্র করে। গেটসের এই কর্মসূচি সফল করতে সহযোগিতা করেছে বিভিন্ন সংস্থা যেমন: বিশ্বব্যাংক২৩৬, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও ইউনিসেফ২৩৭ এবং ফিলিপ মরিস ও ক্র্যাফট২৩৮-এর মতো বৃহৎ প্রক্রিয়াজাত খাদ্য কোম্পানিগুলো। আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলো যেগুলো তার নিয়ন্ত্রিত এবং বহুজাতিক করপোরেশন যেখানে তার বিনিয়োগ রয়েছে; এরা সবাই এই সম্মেলনের সহযোগী অংশীদার।

বন্দনা শিবার মতে, গেইনের উদ্দেশ্য হলো, ‘প্রচারকার্য সমন্বয় করে চাপ তৈরি করা, যাতে আফ্রিকা এবং এশিয়ার দেশগুলোয় প্রক্রিয়াজাত খাদ্যের জন্য ব্যাপক ভর্তুকি, করমুক্তি ও শুল্কছাড় এবং অন্যান্য সর্বোচ্চ সুযোগ-সুবিধা আদায় করা যায়।’

অনুন্নত দেশের খাদ্যব্যবস্থাকে উপনিবেশিত করতে বিল গেটস এবং বহুজাতিক খাদ্য কোম্পানিগুলোর সমবেত প্রচেষ্টা এবং জনস্বাস্থ্যের ব্যানারে প্রক্রিয়াজাত খাদ্য ফেরি করার দৃষ্টিভঙ্গিকে কোনো কোনো বিশেষজ্ঞ মেনে নিতে পারেন না।

নিউইয়র্ক টাইমসের সর্বাধিক বিক্রীত বইএর লেখক এবং Cleveland Clinic Center for Functional Medicine-এ Strategy and Innovation-এর প্রধান ড. মার্ক হাইমেন২৩৯ আমাকে বলেছেন:

‘…কখনো কখনো ভিটামিন এবং খনিজের সংমিশ্রণ থাকা সত্ত্বেও প্রক্রিয়াজাত খাদ্য ভরপুর থাকে চিনি, শ্বেতসার, প্রক্রিয়াজাত তেল, কৃত্রিম রং, প্রিজারভেটিভস, কীটনাশক এবং সোডিয়ামে। যেগুলো অপুষ্টি ও স্থূলতা এবং দীর্ঘস্থায়ী রোগ মহামারি ইত্যাদির ওপর দ্বিগুণ বোঝা চাপাতে ভূমিকা রাখে। স্বাস্থ্যসম্মত প্রাকৃতিক খাদ্যের অভাবে এবং অস্বাভাবিক প্রক্রিয়াজাত খাবার গ্রহণের ফলে প্রতিবছর বিশ্বব্যাপী ১১ মিলিয়ন মানুষ মারা যায়। সে হিসাবে প্রক্রিয়াজাত খাবার হলো বিশ্বের এক নম্বর খুনি।’

‘…কখনো কখনো ভিটামিন এবং খনিজের সংমিশ্রণ থাকা সত্ত্বেও প্রক্রিয়াজাত খাদ্য ভরপুর থাকে চিনি, শ্বেতসার, প্রক্রিয়াজাত তেল, কৃত্রিম রং, প্রিজারভেটিভস, কীটনাশক এবং সোডিয়ামে। যেগুলো অপুষ্টি ও স্থূলতা এবং দীর্ঘস্থায়ী রোগ মহামারি ইত্যাদির ওপর দ্বিগুণ বোঝা চাপাতে ভূমিকা রাখে। স্বাস্থ্যসম্মত প্রাকৃতিক খাদ্যের অভাবে এবং অস্বাভাবিক প্রক্রিয়াজাত খাবার গ্রহণের ফলে প্রতিবছর বিশ্বব্যাপী ১১ মিলিয়ন মানুষ মারা যায়। সে হিসাবে প্রক্রিয়াজাত খাবার হলো বিশ্বের এক নম্বর খুনি।’

ড. হাইমেন ওই খাদ্যগুলোকে পুষ্টির ‘বিপরীত’ হিসেবে চিহ্নিত করেছেন।২৪০ শিবা এই বক্তব্যের সঙ্গে একমত। শিবা বলছেন: ‘গেইন কর্মসূচি অপুষ্টি সমস্যার সমাধান করতে অক্ষম; বরং ষড়যন্ত্রমূলকভাবে উপর্যুপরি চাপ প্রয়োগ করে দারিদ্র্য আক্রান্ত দেশগুলোর বাজার উন্মুক্ত করা এবং স্থানীয় উৎপাদককে উচ্ছেদ করাই হলো এর উদ্দেশ্য।’

অধ্যাপক ম্যারিওন নেসলে২৪১ বলেছেন, ‘পরিপূরক খাদ্য হলো আর্থসামাজিক জটিল সমস্যার একটি বিভ্রান্তিকর কৌশলগত সমাধান। স্বাধীন সামাজিক এবং অর্থনৈতিক সমাধান বরং দীর্ঘমেয়াদে ভালোভাবে কাজ করতে পারে।’ অধ্যাপক নেসলে হলেন পুষ্টি এবং উচ্চমানসম্পন্ন প্রাকৃতিক খাদ্যব্যবস্থা রক্ষার পক্ষে অনুকরণীয় এক দৃষ্টান্ত। তিনি নিউইয়র্ক বিশ্ববিদ্যালয়ের পুষ্টি ও খাদ্যবিদ্যা অনুষদের Paulette Goddard পদে আসীন।২৪২ Food Politics: How the Food Industry Influences Nutrition and Health-এর২৪৩ লেখক নেসলে আমাকে বলেছেন:

‘কেবল আয়োডিনযুক্ত লবণ ছাড়া পরিপূরক খাদ্যের দাম খুব চড়া। যার ফলে সেগুলো নির্দিষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারেনি। অথবা সীমিত সুযোগের কারণে তারা তাদের অভীষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারে না। আমি দেখেছি, যে আইনকানুনগুলো রয়েছে সেগুলো পুষ্টি এবং ক্যালরি ঘাটতির বিষয়ে কোনো উচ্চবাচ্য না-করে যেসব কোম্পানি ওইসব খাবার তৈরি করছে তাদের সমস্যা সমাধান করে দিচ্ছে। আমি পরিপূরক খাবারের ভক্ত নই। আমি চাই ব্যাপক বৈচিত্র্যপূর্ণ সত্যিকারের প্রাকৃতিক খাবার। যেগুলো সহজে মিলবে, দাম কম পড়বে এবং স্থানীয়ভাবে উৎপন্ন হবে। তাই সমালোচনার সঙ্গে আমি একমত। এবং আমি আশা করি, দ্য গেটস ফাউন্ডেশন ক্ষুদ্র, স্থানীয় খাদ্য উৎপাদন প্রকল্পগুলোকে উৎসাহিত করতে এ খাতে বিনিয়োগ করবে।’

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা: কৃষকের জগতে চেপে বসা

গেটস বলেছেন, তিনি খামার অর্থনীতিকে পুনরুদ্ধার করতে চান। তিনি চান অতি দক্ষ, উচ্চপ্রযুক্তির কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাকে কাজে লাগিয়ে কৃষির রূপান্তর ঘটাতে,২৪৪ প্রযুক্তিনির্ভর ‘ভবিষ্যতের খামার’ গড়ে তুলতে। গেটসের মতে২৪৫:

‘একসময় আমাদের সবাইকে কৃষির জন্য বাইরে যেতে হতো। কদাচিৎ আমাদের যথেষ্ট খাদ্য জুটত। প্রতিকূল আবহাওয়ায় মানুষ না-খেয়ে থাকত। এখন অধিকাংশ মানুষ আর কৃষক নন। এখন আমাদের হাতে রয়েছে উন্নতমানের বীজ, সার, আরও অনেক কিছু। আর এভাবে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা আমাদের জন্য বয়ে আনবে ধারণাতীত নতুন উৎপাদনশীলতা।’

সর্বোপরি, তিনি তার প্রকল্পগুলোর দ্রুত বাস্তবায়ন চান।২৪৬ গেটসের ‘প্রযুক্তিগত তাড়না’ তার উচ্চাকাঙ্ক্ষী প্রকল্পগুলোর বাস্তবায়নে এসব লাভজনক উদ্ভাবনগুলোর আত্তীকরণকে ত্বরান্বিত করবে। ফলে জলবায়ুর পরিবর্তনের কারণে ব্যাপকভাবে ফলন নষ্ট হওয়ার আগেই তার বৈজ্ঞানিক সাফল্যগুলো তিনি ক্ষুদ্র কৃষকের কাছে পৌঁছে দিতে পারবেন।

কিন্তু শিবা ইতোমধ্যে ঋণের ভারে গলা পর্যন্ত ডুবে-থাকা মার্কিন কৃষকদের উদ্ধারকল্পে গেটসের যাবতীয় প্রতিশ্রুতির ব্যাপারে সতর্ক করে দিচ্ছেন:

“যখন ভারতীয় কৃষকদের ওপর গেটস তার শয়তানিমূলক ‘উদ্ধারকারী’ প্রযুক্তি চাপিয়ে দিয়েছিলেন তাতে লাভবান হয়েছিলেন একমাত্র তিনি এবং তার বহুজাতিক অংশীদাররা। সরকার এবং Digital Green নামের কোম্পানিকে অর্থ দিয়ে, তার কেনা সরকারি গোলামদের সঙ্গে মিলে তিনি ভারতীয় কৃষির ডিজিটাল রূপান্তর ঘটানোর নানাবিধ অসংযত প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন।

ভারতীয় কৃষকদের খেতে এবং বাড়িতে বিল গেটস ক্যামেরা এবং ইলেকট্রনিক সেন্সর বসিয়েছিলেন। তিনি বিনা মূল্যে সেলফোন, তার ফাইবার অপটিক এবং ৫জি ইনস্টলেশন ইত্যাদি করে দেন। এ খাতে ইন্ডিয়ান টেলিকম কোম্পানিকে বিনিয়োগ করতে রাজি করান। এভাবে তিনি কৃষকদের সেলফোন ব্যবহার করে তাদের কৃষি সম্পর্কিত জ্ঞান, আদিবাসীদের কৃষিচর্চা, শস্যতালিকা, গবেষণা, শস্য সম্পর্কিত যাবতীয় তথ্য চুরি করেন। পরবর্তী সময়ে তার আয়ত্তে নেওয়া তথ্যগুলোকে পুনরায় কৃষকদের কাছে বিক্রি করেন নতুন তথ্য হিসেবে। খামারের ডিজিটাল রূপান্তর ঘটাতে তার দেওয়া প্রতিশ্রুতির পরিবর্তে তিনি খোদ ভারতীয় কৃষকদেরই ডিজিটাল তথ্যে রূপান্তরিত করেছেন। তিনি কৃষকদের বীজ ব্যক্তিমালিকানাধীন করেছেন এবং গণব্যবস্থার ফসল গোলায় ভরেছেন। তিনি তাদের জ্ঞানসম্পদ এবং উত্তরাধিকারসূত্রে প্রাপ্ত বংশগতিবিষয়ক বিজ্ঞানকে ছিন্নভিন্ন করে ফেলেছেন। অপরদিকে জিএমও বীজ ও অন্যান্য হাস্যকর অভ্যাসকে প্রতিস্থাপন করেছেন।” শিবা আরও বলছেন, ‘তার পরিষ্কার কর্মসূচি ছিল ক্ষুদ্র কৃষকদের তাদের ভূমি থেকে উচ্ছেদ করা এবং যান্ত্রিক ও বেসরকারি খাদ্য উৎপাদনকে প্রতিষ্ঠা করা।’

অনলাইন পডকাস্ট ‘Ice Age Farmer’-এর২৪৭ প্রতিষ্ঠাতা ও কৃষিগবেষক ক্রিস্টিয়ান ওয়েস্টব্রুক স্বস্তির নিশ্বাস ফেলেছেন এ কারণে যে, ভারত এবং আফ্রিকায় গেটসের কর্মকাণ্ডের ইতিহাস আমেরিকার কৃষকরা ইতোমধ্যে জেনে গেছেন। ‘আমরা এখন জেনে গেছি বিল গেটস কে এবং আমরা এ-ও জানি যে, তিনি মেক্সিকো, আফ্রিকা ও ভারতের ক্ষুদ্র কৃষকদের নিয়ে কী ছিনিমিনি খেলেছেন। বর্তমানে তার জমি ক্রয়ের উদ্দেশ্য যে ‘সবুজ বিপ্লব ৩’-এর শুরু, তাও আমাদের জানা। তিনি আমেরিকার প্রাকৃতিক ভূবৈচিত্র্য এবং আমাদের খামারি পরিবারের গণতান্ত্রিক সৌন্দর্য নিংড়ে নিতে চান। তিনি আমাদের জীবিকা, আমাদের জ্ঞান, আমাদের বীজ এবং আমাদের ভূমি চুরি করে নিজের গোলায় ভরতে চান।’

অন্যান্য অনুসন্ধানীর মতো ওয়েস্টব্রুক খেয়াল করেছেন যে, গেটস সবসময় তাড়াহুড়ার মধ্যে থাকেন। বলছেন:

‘তার কৌশল হলো সবাইকে তাড়িয়ে বেড়ানো যাতে কেউ তার কেলেঙ্কারিগুলোর দিকে নজর দিতে না-পারে। তিনি প্রতিনিয়ত বলছেন যে, জলবায়ু পরিবর্তন কারো জন্য অপেক্ষা করবে না। তাই, আমাদের উচিত তার পণ্য এবং প্রযুক্তিগুলো দ্রুত হস্তগত করা। তার ভবিষ্যদ্বাণী কিন্তু এখনো এত দ্রুতগতিতে ফলেনি।’

ওয়েস্টব্রুক আমাকে বলেছেন যে, “কার্যক্রম দ্রুতগতিতে সম্পন্ন করার জন্য গেটস-এর বিরামহীন বকবকানি, তার আশ্চর্যজনক নতুন প্রযুক্তি, ‘বিনিয়োগ’, ‘সরকারি-বেসরকারি’ অংশীদারত্ব সম্পর্কিত বেহিসাবি প্রতিশ্রুতি সব কটিই আসলে একই সূত্রে গাঁথা। ‘তিনি সবসময় সবাইকে বলে বেড়ান যে, আমাদের দরকার ‘গতি, গতি এবং গতি’।”

ষষ্ঠ প্রজন্মের মধ্যপশ্চিমাঞ্চলের র‌্যাঞ্চার এবং খামারকর্মী ট্রেন্ট লুজ২৪৮ আমাকে বলেছেন যে, যুক্তরাষ্ট্রের খামার জমিকেন্দ্রিক বিলিয়নিয়ারদের ‘একচেটিয়া খেলা’র বিরুদ্ধে কৃষকদের ব্যঙ্গাত্মক হাটু ঝাঁকানি প্রতিক্রিয়া (knee-jerk reaction) রয়েছে:

‘নতুন কৃষক কিংবা প্রজন্মের পর প্রজন্ম ধরে যারা খামার করছেন তাদের কারো জন্যও এ ধরনের গভীর জলের মাছের সঙ্গে প্রতিযোগিতায় টিকে থাকা একটু মুশকিল। তাদের কর্মকাণ্ড কখনো কখনো কৃষকদের জন্য বাধার সৃষ্টি করে। যখন এই ধরনের সম্পদশালী লোকগুলো খামার কেনা শুরু করেন তখন আমরা একটু অবাকই হই এবং বুঝতে চেষ্টা করি, তাদের আসল উদ্দেশ্য কী। কেউ বিল গেটসের কাছ থেকে জমি ভাড়া নিতে চায় না কিংবা বর্গাচাষি হিসেবে তার সঙ্গে কাজও করতে চায় না।’

ওয়েস্টব্রুক বলেছেন যে তিনি বিশ্বাস করেন, গেটস আরও গভীর কোনো পরিকল্পনা নিয়ে মাঠে নেমেছেন। শিবার মতো ওয়েস্টব্রুকের বিশ্বাস, গেটস এবং তার অন্য ডাকাত ব্যারনরা মিলে জলবায়ু, জীববৈচিত্র্য এবং প্রাণী থেকে মানুষের মধ্যে ছড়ানো রোগের মহামারি হুমকিকে কাজে লাগিয়ে মানুষকে কৃষিব্যবসা এবং খামার থেকে উচ্ছেদ করতে তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছেন। এই কথার সমর্থনে বহু প্রমাণ রয়েছে। গুগলের মূল কোম্পানি Alphabet-এ দ্য গেটস ফাউন্ডেশনের উল্লেখযোগ্য বিনিয়োগ রয়েছে।২৪৯, ২৫০ অ্যালফাবেট ‘গন্ধ শোঁকা’ রোবট২৫১ উদ্ভাবন করেছে। ‘মিনারেল’ (Mineral)২৫২ প্রকল্পের অংশ হিসেবে এমনভাবে পরিকল্পনা করা হয়েছে যাতে কৃষক এবং র‌্যাঞ্চারের পরিবর্তে রোবটকে কাজে লাগানো যায়। এর ‘মুনসট’ (Moonshot) প্রকল্প২৫৩ হলো, ‘কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা, সিমুলেশন, সেন্সর, রোবোটিকস এবং আরও অনেক কিছুর সাফল্যের ওপর ভিত্তি করে বিভিন্ন সফটওয়্যার ও হার্ডওয়্যার প্রোটোটাইপগুলোর উন্নয়ন এবং পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা।’

শিবার মতো ওয়েস্টব্রুকের বিশ্বাস, গেটস এবং তার অন্য ডাকাত ব্যারনরা মিলে জলবায়ু, জীববৈচিত্র্য এবং প্রাণী থেকে মানুষের মধ্যে ছড়ানো রোগের মহামারি হুমকিকে কাজে লাগিয়ে মানুষকে কৃষিব্যবসা এবং খামার থেকে উচ্ছেদ করতে তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছেন।

জেফ বেজোসের Amazon-এ গেটসের উল্লেখযোগ্য বিনিয়োগ রয়েছে। বেজোস হলো সেই ধনী ব্যক্তি যে এক বছরের মধ্যে পুরো Whole Food কিনে নিয়েছিলেন।২৫৪, ২৫৫ এছাড়াও মানবনির্ভরতা কমাতে গেটস রোবট নিয়ন্ত্রিত ভার্টিক্যাল খামারে উল্লেখযোগ্য পরিমাণ বিনিয়োগ করেছেন।২৫৬

ওয়েস্টব্রুক বলেন, ‘তিনি খামার থেকে মানুষকে সরিয়ে দিতে চান, প্রাণীদের সরিয়ে দিতে চান এবং আমাদের সবাইকে কারখানার তৈরি নকল মাংস ও ছারপোকার প্রোটিন খাওয়াতে চান।’

আইওয়ার একজন কৃষক, হাওয়ার্ড ভ্লিএগার। যিনি ১৯৯২ সাল থেকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডায় শস্য ও পশুপালনবিষয়ক কনসালট্যান্ট হিসেবে কাজ করে এসেছেন। বলেন, ‘গেটস কৃষি খামার সম্পর্কে এমনভাবে কথা বলেন যেন এটা প্রত্নতাত্ত্বিক, উদ্ভট, নোংরা, বিপজ্জনক, অদক্ষ, অতীতের অসভ্য সব নিদর্শন।২৫৭ এ কারণে জলবায়ু সংকট এবং ঝুঁকি বাড়ছে এবং জীবাণুর সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগের কারণে বিশ্বব্যাপী মানুষকে মহামারির ঝুঁকির মধ্যে ফেলে দিচ্ছে।’

‘গেটস কৃষি খামার সম্পর্কে এমনভাবে কথা বলেন যেন এটা প্রত্নতাত্ত্বিক, উদ্ভট, নোংরা, বিপজ্জনক, অদক্ষ, অতীতের অসভ্য সব নিদর্শন। এ কারণে জলবায়ু সংকট এবং ঝুঁকি বাড়ছে এবং জীবাণুর সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগের কারণে বিশ্বব্যাপী মানুষকে মহামারির ঝুঁকির মধ্যে ফেলে দিচ্ছে।’

মাটি এবং খাদ্যপণ্যের ওপর জিএমও ও কীটনাশকের প্রভাব বিষয়ে ভ্লিএগার একজন বিশেষজ্ঞ। তিনি বলেছেন, ‘মানুষ ও প্রাণীনির্ভর কৃষিকে টেকসই জায়গা থেকে সরিয়ে দেওয়াই গেটসের উদ্দেশ্য। মাটির সঙ্গে আমাদের নিবিড় সম্পর্ক। প্রকৃতির সঙ্গে শ্রদ্ধাপূর্ণ মিথস্ক্রিয়ার ফলে আমাদের স্বাস্থ্য ভালো থাকে। কৃত্রিম গরু এবং রাসায়নিক দূষণের দৃষ্টান্ত প্রকৃত অর্থে আমাদের পুরো বিষয়টিকে বিপরীত জায়গায় দাঁড় করিয়ে দেবে। তার লক্ষ্য হলো, মানুষকে প্রকৃতি থেকে বিযুক্ত করা এবং দূষিত ও অপ্রয়োজনীয় খাদ্য খাওয়ানো।’

নিকোলেট নিমান২৫৮ আমাকে বলেছেন, ‘আমাদের মতো পরিবার যারা খামারের সঙ্গে যুক্ত তাদের আনন্দ দেখে বোধহয় গেটসের মনে জ্বালা ধরে যায়।’ নিমান একজন ক্যালিফোর্নিয়ার র‌্যাঞ্চার ও কৃষক এবং ‘Righteous Porkchop’ ও ‘Defending Beef’-এর লেখক। তার স্বামী বিল হলো নিমান র‌্যাঞ্চ-এর প্রতিষ্ঠাতা। এই র‌্যাঞ্চে একশ মার্কিন ছোট গাঁট্টাগোট্টা গরু এবং শূকর রয়েছে। ঘাসনির্ভর উন্নতমানের প্রাকৃতিক গরু ও শূকরের মাংস এই খামার থেকে বাজারজাত করা হয়।

নিমান বলেছেন, ‘পুনরুৎপাদনশীল কৃষিকাজ এবং র‌্যাঞ্চিং মানুষের জীবনকে অসম্ভব সমৃদ্ধ করে;২৫৯ ধরণির সঙ্গে নিবিড় সম্পর্ক গড়ার মাধ্যমে কাজটি করা যদিও খুব কঠিন। সবচেয়ে ভালো, প্রকৃতিকে বুঝে প্রাকৃতিক মডেল অনুসরণ করা।’ তিনি আরও মনে করেন, প্রকৃতির প্রজ্ঞা নিয়ে গেটসের কোনো মাথাব্যথা নেই, যেহেতু তাতে কোনো ব্যবসায়িক স্বার্থ নেই:

‘তিনি বুঝতে চান না যে, প্রকৃতির সঙ্গে আমাদের সম্পর্ক নিবিড়, ঘনিষ্ঠ। ধরণির সংস্পর্শে আমরা যে আনন্দ পাই, নিজস্ব প্রাণীদের সঙ্গে আমাদের যে গভীর জটিল সম্পর্ক, এমনকি সমস্ত কঠোর পরিশ্রম এবং কঠিন বাধাগুলোকেও আমরা তুচ্ছজ্ঞান করি—এসব বোঝার ক্ষমতা মনে হয় তার নেই। বুঝতে চান না, এটাই আমাদের স্বাধীনতা এবং আমাদের গর্ব এবং আনন্দের উৎস এবং যে কারণে আমরাই আমাদের ভাগ্য নির্মাণ করতে পারি।’

‘আমরা এমন একটা পৃথিবী গড়তে চাই যেখানে ব্যক্তির আত্মনিয়ন্ত্রণ, প্রাণীর সঙ্গে মানুষের সম্পর্ক এবং মাটির প্রতি আমাদের দায়িত্বশীলতাকে খুব সম্মানের চোখে দেখা হবে। আমাদের বুঝতে হবে, প্রকৃতির সঙ্গে আমাদের সার্বিক এই সম্পর্ক শুধু স্বাস্থ্য এবং জলবায়ুর জন্যই প্রয়োজনীয় নয়; বরং এই সম্পর্ক হলো আত্মমর্যাদা, মুক্তি এবং শিল্প-পরবর্তী যুগের বিকাশের উৎস।’

ব্যাপক পরিসরে প্রযুক্তিগত ব্যবহারের কারণে বিভিন্ন মহাদেশের পরিবেশ কর্মীরা মনে করেন, গেটস মানুষ দেখেন না, দেখেন জনসংখ্যা। জনসংখ্যার ব্যবস্থাপনা একটা সমস্যা হিসেবে দেখেন, প্রযুক্তির মাধ্যমে তিনি সমাধানের উপায় খোঁজেন।

ভ্লিএগার দেখেছেন, ‘গেটস বন দেখেন কিন্তু সেখানে গাছ দেখেন না। যদিও-বা গাছ দেখেন; কিন্তু সেখানে তিনি বোর্ড বানানোর কাঠ দেখেন। লাভের জন্য প্রাকৃতিক ভূবৈচিত্র্যকে কীভাবে তিনি তার উদ্দেশ্য সাধনের উপায় করতে পারেন! এবং মানুষকে পণ্যায়িত করতে পারেন!’’ ভ্লিএগার আরও বলেন:

‘মানুষের প্রতিটি কঠিন পরিস্থিতির যাবতীয় সমাধান দিতে পারে কিছু প্রযুক্তি—প্রযুক্তিগত চোখ দিয়ে এভাবে দেখার অভ্যাস গেটসের। এতে তিনি তার মুনাফা সর্বোচ্চকরণের পথ পেয়ে যান। সত্যিকার অর্থে এটা এক ধরনের বিকার—মনস্তাত্ত্বিক বিকারগ্রস্ততা। গেটস একজন ভয়ংকর ক্ষমতাবান বিকারগ্রস্ত ব্যক্তি, যিনি ১৩৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের মালিক। এবং যিনি উপর থেকে নিচ পর্যন্ত প্রযুক্তিপ্রকৌশলতন্ত্রে বিশ্বাসী। ব্যাপারটি কি কাউকে উদ্বিগ্ন করছে না?’

ওয়েস্টব্রুক বলেন, গেটস, কার্গিল এবং টাইসন হলো একটি শক্তিশালী কার্টেল। যাদের মিশন হলো প্রাণীনির্ভর কৃষিব্যবস্থার পরিসমাপ্তি ঘটানো এবং খামার থেকে খামারিদের উচ্ছেদ করা। ‘এটা হলো কৃষির প্রতিস্থাপন,’ বলেছেন ওয়েস্টব্রুক, “এমনকি তারা ‘বিকল্প কৃষি’ শব্দও ব্যবহার করেছেন।’’

গেটসের টেকনোক্রেটিক সর্বগ্রাসী (totalitarianism) ভয়ানক কল্পরাজ্যের ভবিষ্যৎ সম্পর্কে ওয়েস্টব্রুকের দৃষ্টিভঙ্গিকে, গেটসের সপক্ষে যাবতীয় প্রমাণ উপেক্ষাকারী ব্যক্তির ভিত্তিহীন ষড়যন্ত্র তত্ত্ব মনে হতে পারে। গেটস ভবিষ্যদ্বাণী করেছেন যে, খুব শীঘ্রই, বছর না, মাসের মধ্যেই আমরা প্রকৌশলকৃত (engineered) খাদ্যঘাটতির সম্মুখীন হব। গ্রামীণ জমিগুলো খালি করার চাপ বাড়বে এবং অলস জমিগুলোর ‘উন্নয়ন’ ঘটাতে খামারি কর্মী হিসেবে রোবট এবং কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার প্রতিস্থাপন দেখব।

ওয়েস্টব্রুকের ধারণা, জনগোষ্ঠীকে গ্রাম থেকে মেগাসিটি এবং চাকচিক্যময় শহরমুখী করার সরকারি প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে। যেখানে ব্যবসা-বাণিজ্য বন্ধ। চাকরির বাজার মন্দা। বেশিরভাগ নির্ভর করবে সর্বজনীন মূল মজুরির ওপর। মজুরি প্রদান করা হবে আবার ডিজিটাল মুদ্রায়। যেটি অবশ্যই প্রত্যাহারযোগ্য। যদি কেউ কোনো আইন অমান্য করে কিংবা অবাধ্য হয়, তার জন্য সেই শাস্তি প্রযোজ্য হবে। ওয়েস্টব্রুকের ধারণা, এমন একটা অবস্থা হবে ‘যেখানে মানুষ, গবাদি পশু; অর্থ এবং খাদ্যের জন্য পুরোপুরিই সরকারের ওপর নির্ভরশীল থাকবে। তিলোত্তমা শহরের একটি কোণে সবাইকে রাখা হবে, যাতে সবার ওপর গেটসের প্রযুক্তিগত নজরদারি করা যায়। এটাই হলো গেটসের Great Reset’। ওয়েস্টব্রুক আরও বলেন:

‘তারা আমাদের খাদ্য উৎপাদন বন্ধ করে দিচ্ছে। আরও বিস্তৃতভাবে বললে, তারা আসলে আমাদের সব অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড বন্ধ করে দিচ্ছে—মানুষের সমস্ত কর্মকাণ্ড। তাদের চাকচিক্যময় শহরের খাঁচায় আমাদের বন্দি করতে চাইছে। এটা রীতিমতো ভয়াবহ। এবং এ পর্যায়ে আমরা মহামারির ভয়াবহতা দেখছি। তাদের মনের কথা এরকম, ‘এখন তো মহামারি আমরা পেয়ে গেছি। এখন আমরা আমাদের সামরিক চিকিৎসা আইনের প্রয়োগ ঘটাব। এই স্বাস্থ্য সংকটের সুযোগে আমরা তোমাদের সমস্ত খাদ্য উৎপাদন আমাদের হাতে নিয়ে নেব। তোমাদের পুষ্টির চাহিদা আমরাই ঠিক করে দেব।’ এভাবে দুটো বিষয়কে একত্রে তারা সাজিয়ে নিয়েছে।’

সময় বলে দেবে, ওয়েস্টব্রুকের দুঃস্বপ্ন নিছক ভৌতিক ষড়যন্ত্রতত্ত্ব কি না—দেখা যাক।

জাতিসংঘ খাদ্য সম্মেলন

বিল গেটস তার কোম্পানির ভ্যাকসিন চালু করার উদ্দেশ্যে ২০০৯ সালে জাতিসংঘে একটি বক্তব্য দেন। গেটস, যিনি কিনা একজন অনির্বাচিত বিলিয়নিয়ার এবং যার কোনো সরকারি অফিস নেই কিংবা কূটনৈতিক দায়িত্বপ্রাপ্তও নন—তিনি সম্মেলনে ১০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার অনুদানের ঘোষণাসমেত ‘ভ্যাকসিনের দশক’ কর্মসূচি চালু করেন।২৬০ ঘড়ির কাঁটা ধরে তার কর্মসূচি প্রকাশিত হচ্ছিল। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ওপর লৌহকঠিন নিয়ন্ত্রণ নিতে এই অনুদান ব্যাপক ভূমিকা পালন করে। Foreign Affairs-এর প্রতিবেদন মোতাবেক২৬১, ‘বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা কিছু নীতিগত উদ্যোগ কিংবা কিছু আদর্শ মান ঘোষণা করে যেগুলো পরবর্তী সময়ে অনানুষ্ঠানিকভাবে গেটস ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তারা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখেছিলেন।’

গেটস PATH, GAVI, CEPI ও Briton Collaboration-এর মতো কিছু শক্তিশালী নকল সরকারি সংস্থা তৈরি করেছিলেন। এসব সংস্থায় তিনি নিয়মিত অনুদান দেন। উন্নয়নশীল দেশগুলোর ওপর ভ্যাকসিন চাপিয়ে দিতে, জনস্বাস্থ্যের ওপর তার নিয়ন্ত্রণ কায়েম করতে এবং পূর্বপরিকল্পিত ২০২০-এর ভ্যাকসিন অভ্যুত্থান ঘটানোর ভিত্তিমূলক আয়োজন করার উদ্দেশ্যে এই সংস্থাগুলোকে গঠন করা হয়েছিল।

জানুয়ারি ২০১৯-এ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা কোনো নির্দিষ্ট প্রমাণ ব্যতিরেকেই দায়িত্বের সঙ্গে ঘোষণা দিয়েছিল যে, ‘ভ্যাকসিন নিয়ে দ্বিধা’ বৈশ্বিক স্বাস্থ্যের জন্য একটা অন্যতম প্রধান হুমকি।২৬২ এই ঘোষণা অনুসরণ করে গেটস-এর মেডিকেল কার্টেল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিটি অঙ্গরাজ্যে এবং সারা বিশ্বে প্রচারণা চালায়। তখন ভ্যাকসিনের জন্য কর মওকুফ এবং ভ্যাকসিন আইন করে আদেশ জারি করতে ওষুধ কোম্পানির মাসোহারাপ্রাপ্ত রাজনীতিবিদরা যথেষ্ট তৎপরতা দেখান।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ক্ষমতাধর প্রতিষ্ঠান The House Intelligence Committee-এর প্রধান অ্যাডাম স্কিফ গেটসের আর্থিক সুবিধাভোগীদের একজন। ভ্যাকসিনবিষয়ক বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ঘোষণার দু-মাস পর তিনি ‘ভ্যাকসিন সম্পর্কিত ভুল তথ্য’গুলোকে সেন্সর করে প্রকাশ করার জন্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এবং গণমাধ্যমগুলোর কাছে দাবি করেন।২৬৩ ওষুধ কোম্পানির কর্মকর্তা এবং সরকার কর্তৃক প্রদত্ত ঘোষণাকে যেন শ্রুতিমধুর করে জনগণের সামনে উপস্থাপন করা হয়–এই প্রস্তাব দেন। গুগল, অ্যাপল, অ্যামাজন এবং ফেসবুকে গেটসের যথেষ্ট বিনিয়োগ রয়েছে।২৬৪, ২৬৫ স্কিফের দাবির পর থেকে এই কোম্পানিগুলো ভ্যাকসিন সম্পর্কিত যে কোনো সমালোচনা স্বতঃস্ফূর্তভাবেই সেন্সর করে প্রকাশ করা শুরু করে।

এক বছর পর, কোভিড-১৯ মহামারি গেটস এবং তার ভ্যাকসিন কার্টেলকে মানুষের ওপর নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করতে বিশাল সুযোগ করে দেয়। The Last American Vagabond পর্যালোচনা করে ডেরিক ব্রোজ মে ২০২০-এর একটি প্রতিবেদনে উল্লেখ করেন যে, ‘গেটস ফাউন্ডেশন’-এর বিনিয়োগ এবং গেটসের সম্পর্কগুলো অনুসন্ধান করে আমরা দেখেছি যে, কোভিড-১৯-এর বিরুদ্ধে লড়াই করা প্রায় প্রতিটি ব্যক্তি দুই ডিগ্রি বা তারও কম তার সঙ্গে বাধা পড়ে গেছেন।’২৬৬ এই সম্পর্ক বিল গেটস ও তার ফাউন্ডেশনকে মহামারির প্রতিক্রিয়াস্বরূপ অবাধ প্রভাব খাটানোর সুযোগ করে দিয়েছে।

গণমাধ্যমের যতগুলো নেটওয়ার্ক এবং কেবল শো-তে গেটস উপস্থিত হয়েছেন সব কটিতে তিনি বারবার উল্লেখ করেছেন যে, যতদিন পর্যন্ত সাত বিলিয়ন মানুষ ভ্যাকসিন এবং টিকাদান সনদযুক্ত পাসপোর্টের আওতায় না-আসবে ততদিন পর্যন্ত সব ধরনের অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড অবশ্যই বন্ধ রাখা উচিত।২৬৭, ২৬৮ উল্লেখ্য যে, কোনো বাধা-বিপত্তি ছাড়া জাতিসংঘে উপস্থাপিত তার ‘ভ্যাকসিনের দশক’২৬৯ চালুর পর দশ বছর পার হলো। অন্যদিকে, গেটসের পুরোনো আশ্রিত ও অনুগত ব্যক্তি ফাউচির নেতৃত্বে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ডিপার্টমেন্ট অব হেলথ অ্যান্ড হিউম্যান সার্ভিসেস কোভিড ভ্যাকসিনের জন্য দায়মুক্তি কর্মসূচির আয়োজন করেছে।২৭০ এ উপলক্ষ্যে জনগণের করের অর্থ থেকে ৪৮ বিলিয়ন মার্কিন ডলার ব্যয়ে নতুন পরীক্ষাধীন যত্তসব ভ্যাকসিন কেনা ও বিতরণের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। ওষুধ বিক্রেতা এই কোম্পানিগুলোর বেশিরভাগের সঙ্গে গেটসের মালিকানার সম্পর্ক রয়েছে।

পুরো প্রক্রিয়ার ওপর নিয়ন্ত্রণ মোটামুটি সমাপ্ত। ভ্যাকসিন সম্পর্কিত আগাম ঘোষণানুযায়ী তার কর্মকাণ্ড সব অসম্ভব মার্জিত এবং নিখুঁত। এখন গেটসের অনুসারীরা একই ছকে খেলছেন এবং তার সর্বগ্রাসী  খাদ্য কর্মসূচি বাস্তবায়নের জন্য উঠে পড়ে লেগেছেন।

২০১৯ সালের ১৪-১৮ অক্টোবর অনুষ্ঠিত জাতিসংঘের বিশ্ব খাদ্য নিরাপত্তা কমিটির ৪৬তম অধিবেশনে সেক্রেটারি জেনারেল António Guterres, ২০২১ সালে জাতিসংঘ খাদ্যব্যবস্থার ওপর সম্মেলন আহ্বান করেন।২৭১ জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থা (FAO), কৃষি উন্নয়নের জন্য আন্তর্জাতিক তহবিল (IFAD), বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচি (WFP) ও বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরাম (WEF)—এই চারটি সংস্থার অনুরোধে তিনি এ আহ্বান জানান। বিল গেটস এবং তার ফাউন্ডেশন উদারহস্তে এই চার সংস্থাকে অনুদান দেন এবং নিয়ন্ত্রণ করে থাকেন।২৭২

জুন ২০২০-এ WEF-এর গ্রেট রিসেট কনফারেন্স’২৭৩-এর পাশাপাশি জাতিসংঘ খাদ্য সম্মেলন থেকে কার্যকরভাবে সমান্তরাল কর্মসূচি ঘোষণা দেয়। AGRA Watch নামে মাঠপর্যায়ের একটা সংগঠন যারা আফ্রিকায় গেটস এবং তার ফাউন্ডেশনের ব্যর্থ সবুজ বিপ্লবের ওপর কাজ করে। এই গ্রুপটি জাতিসংঘের ‘খাদ্যব্যবস্থা’ সম্মেলন পর্যবেক্ষণ করে দেখেছে যে, সম্মেলনের গুরুত্বপূর্ণ ১২ জন ব্যক্তির ১১ জনেরই গেটস ফাউন্ডেশনের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ রয়েছে।২৭৪

কিছু দৃষ্টান্ত তুলে ধরে আগ্রা ওয়াচ-এর হিদার ডে জানিয়েছেন, গেটস ফাউন্ডেশন থেকে সরাসরি অনুদানপ্রাপ্ত সংস্থাগুলোর এবং গেটস নির্দিষ্ট কিছু কর্মসূচি জাতিসংঘের নীতি-কৌশল প্রণয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছিল। ‘শুধু তাই-ই নয়; বরং অংশগ্রহণকারী প্রায় প্রতিটি ব্যক্তিই বিল গেটসের জন্য কাজ করে। অন্যদিকে, এরা সবাই আবার জাতিসংঘের খাদ্য সম্মেলনের মূল প্রতিবেদন প্রস্তুতকারী।’ সুতরাং প্রকৃত অর্থে খাদ্য সম্মেলন হলো শতভাগ গেটস প্রকল্প।২৭৫

আরও খারাপ দিক হলো, ড. অ্যাগনেস কালিবাতা, গেটসের ‘খাদ্য নিরাপত্তার দশক’ প্রকল্পের সমন্বয়কারী। কালিবাতা গেটস/রকফেলার AGRA কর্মসূচির প্রেসিডেন্ট।২৭৬ এই প্রতিষ্ঠানটি আফ্রিকায় গেটসের কুখ্যাত ব্যর্থ সবুজ বিপ্লব ঘটানোয় মূল ভূমিকা পালন করে। AGRA-কে বিশ্বে প্রতিষ্ঠিত করার নেপথ্যে মূল কারিগর এই কালিবাতা। তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন, এই সম্মেলন খাদ্যব্যবস্থা, জলবায়ু এবং টেকসই শান্তির লক্ষ্যে সব প্রধান অংশীদারকে সরকারি-বেসরকারি অংশীদারত্বে বিনিয়োগ করতে একত্রিত করবে।২৭৭

খাদ্য সম্মেলনে অংশগ্রহণকারী সবাইকে কালিবাতা এর জরুরি বাস্তবায়নের দিকটি বারবার মনে করিয়ে দিয়েছেন। তিনি বলেছেন যে, তাদের হাতে আছে আর মাত্র ১০ বছর সময়। এ সময়ের মধ্যে জলবায়ু, পুষ্টি এবং মহামারি মোকাবিলায় ‘টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য’ পূরণের জন্য খাদ্যব্যবস্থায় ব্যাপক রূপান্তরের গতি বাড়াতে হবে।২৭৮

জাতিসংঘের খাদ্য সম্মেলনে গেটসের ‘খাদ্য দশক’ কর্মসূচির নীলনকশাই মূলত বিন্যস্ত থাকবে। এই নীলনকশা হলো তার ২০৩০ সাল পর্যন্ত বৈশ্বিক খাদ্য কর্মসূচি বাস্তবায়নের এজেন্ডা। আমরা প্রার্থনা করতে পারি, মানবতার জন্য গেটসের পরবর্তী নতুন স্বাস্থ্য পরিকল্পনা ‘ভ্যাকসিনের দশক’ ২০২০ কর্মসূচি যাতে একই ধরনের না হয়। আমাদের নাগরিক অধিকার, আমাদের বৈশ্বিক অর্থনীতি, আমাদের সভ্যতার ঐতিহ্য, গণতন্ত্রের আদর্শ এবং আমাদের আত্মনিয়ন্ত্রণের অধিকারের প্রশ্নে এই কর্মসূচি যেন ভয়ংকর বিপর্যয়ের কারণ না হয়।

ডে খুব হতাশাজনক সময়ের ইঙ্গিত দিয়ে বলেছেন, ‘প্রাকৃতিক কৃষি খামার সংশ্লিষ্ট যা কিছু ভালো তার প্রতিস্থাপন কীভাবে করতে হবে, সে বিষয়ে গেটসের পরিকল্পনা হতে যাচ্ছে একটি রোডম্যাপ। আর সেই পরিকল্পনার মধ্যে রয়েছে: টেকনোক্র্যাটদের নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় মানুষবিহীন খামারব্যবস্থা, রাসায়নিক খাদ্য এবং ছারপোকা প্রোটিন খাওয়ানোর ব্যবস্থা।’

‘প্রাকৃতিক কৃষি খামার সংশ্লিষ্ট যা কিছু ভালো তার প্রতিস্থাপন কীভাবে করতে হবে, সে বিষয়ে গেটসের পরিকল্পনা হতে যাচ্ছে একটি রোডম্যাপ। আর সেই পরিকল্পনার মধ্যে রয়েছে: টেকনোক্র্যাটদের নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় মানুষবিহীন খামারব্যবস্থা, রাসায়নিক খাদ্য এবং ছারপোকা প্রোটিন খাওয়ানোর ব্যবস্থা।’

উপসংহার

দ্য গেটস ফাউন্ডেশন গতানুগতিক কোনো হিতকারী প্রতিষ্ঠান নয়। সংস্থাটি এমন সব প্রতিষ্ঠানে বা কাজে অনুদান দিয়ে থাকে যেখানে কোনো-না-কোনোভাবে জনপ্রিয় হওয়ার সম্ভাবনা আছে। তার মধ্যে আছে: Wounded Warrior Foundation, ASPCA, তথাকথিত পরিবেশবাদী অথবা ভোটাধিকার কিংবা নির্দিষ্ট কিছু নাগরিক অধিকার গোষ্ঠী।

এটা তার এক ধরনের গোপন অস্ত্র। জনহিতকর মুখোশকে কাজে লাগিয়ে জনগণের সমর্থন আদায়ের চেষ্টা। ১৯৯৪ সালে গেটসের বিরুদ্ধে ‘মাইক্রোসফট এন্টিট্রাস্ট মামলা’২৭৯ হয়েছিল, যেখানে তিনি তার মিথ্যাবাদিতা, প্রতারণা, চুরি, বৈশ্বিক তথ্যপ্রবাহের ওপর জঘন্য একচেটিয়া আধিপত্যমূলক প্রভাব খাটানোর জন্য দোষী সাব্যস্ত হন। তখন তিনি মর্যাদা পুনরুদ্ধারের জন্য জনহিতকারিতার মুখোশকে কাজে লাগিয়েছেন।

১৯৯৪ সালে গেটসের বিরুদ্ধে ‘মাইক্রোসফট এন্টিট্রাস্ট মামলা’ হয়েছিল, যেখানে তিনি তার মিথ্যাবাদিতা, প্রতারণা, চুরি, বৈশ্বিক তথ্যপ্রবাহের ওপর জঘন্য একচেটিয়া আধিপত্যমূলক প্রভাব খাটানোর জন্য দোষী সাব্যস্ত হন। তখন তিনি মর্যাদা পুনরুদ্ধারের জন্য জনহিতকারিতার মুখোশকে কাজে লাগিয়েছেন।

তখন থেকে গেটস ৩৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার বিনিয়োগ করেছেন গেটস ফাউন্ডেশন-এ।২৮০ যার বর্তমান মূল্য দাঁড়িয়েছে ৪৬.৯ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।২৮১ এই সংস্থার ওপর পূর্ণ কর্তৃত্ব তার এবং তার স্ত্রীর। সংস্থাটি দাতব্য কাজের জন্য অনুদান হিসেবে দিয়েছে মাত্র ২৩.৬ বিলিয়ন২৮২ মার্কিন ডলার। এই প্রদত্ত ‘উপহার’-এর মধ্যে বিভিন্ন কোম্পানিকে দেওয়া বিলিয়ন ডলার করমুক্ত চাঁদা রয়েছে। এসব কোম্পানিতে গেটসের নিজস্ব পর্যাপ্ত বিনিয়োগ আছে।২৮৩ কোম্পানিগলো হলো: Merck, GlaxoSmithKline, Novartis, Sanofi।

এ ধরনের একটা ফাউন্ডেশন গড়ে তোলার পরিকল্পনার মধ্যে গেটসের বিচক্ষণতার পরিচয় বহন করে। অপরদিকে, বিভিন্ন উৎস থেকে প্রাপ্ত আয় পুঞ্জীভূত ও বৈধকরণের ক্ষেত্রে সংস্থাটি তার একটি আশ্রয়স্থল হিসেবে কাজ করে। করদাতাদের কাছ থেকে প্রাপ্ত ফাউন্ডেশনের বিভিন্ন প্রকল্পে জমাকৃত আয় আবার অন্যান্য প্রকল্পে বিনিয়োগ করার বৈধতা পাওয়া যায়। এতে তার সম্পদ গুণিতক হারে বাড়ে, ক্ষমতা বিস্তৃত হয়, খ্যাতি বাড়ে এবং একইসঙ্গে কর প্রদান থেকে রেহাই পাওয়া যায়।

সংস্থার কাঠামো ব্যবহার করে করমুক্ত অনুদান তার অংশীদার বিভিন্ন কোম্পানিতে বিনিয়োগ করেন। বিনিয়োগ থেকে প্রাপ্ত কর ফাঁকি দেওয়া আয়, মুনাফা তিনি তার ব্যক্তিগত ও ফাউন্ডেশনের হিসাবে জমা করেন। এবং অসংখ্য উপায়ে সংস্থাটি তার অর্থকে লুকাতে সহযোগিতা করে। এতে দু-পক্ষেরই পারস্পরিক লাভ (উইন-উইন সিচুয়েশন)! একচ্ছত্র আধিপত্য ও নিয়ন্ত্রণ কায়েমের বাসনায় গেটস তার ফাউন্ডেশনকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করেন। জনহিতৈষীমূলক পুঁজিবাদী (philanthropic capitalism) কর্মকাণ্ডের ক্ষেত্রে এটি একটি নিরাপদ বাহন। সর্বজনের অধিকার ছিনতাই করতে, জনস্বার্থ ও করপোরেটের মধ্যকার বিভেদ দেওয়ালকে ঘোলাটে করে দিতে এবং মহৎ জনহিতৈষী ছদ্মাবরণ ধারণ করে ব্যক্তিপুঁজির মুনাফার এজেন্ডাকে লুকিয়ে রাখতে এই বাহনের জুড়ি নেই। এর মধ্যদিয়ে তিনি গণস্বাস্থ্য, আমাদের গ্রহের জীবন সহায়ক ব্যবস্থা, অর্থনীতি এবং সর্বোপরি মানুষের ওপর তার একচেটিয়া নিয়ন্ত্রণ বিস্তার করতে উদ্বুদ্ধ হন।২৮৪

গেটস তার ফাউন্ডেশনকে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করে তার আশ্রিত ও অনুসারী বিলিয়নিয়ারদের শক্তি-সামর্থ্য সংহত করেন এবং নীতিনির্ধারকদের ওপর প্রভাব বিস্তার করেন।২৮৫ তার ব্যবসায়ের অংশীদার বৃহৎ ওষুধ কোম্পানি, নোংরা ও বিষাক্ত জ্বালানি উৎপাদক, জিএমও খাদ্য প্রস্তুতকারক, টেলিকম, বৃহৎ তথ্য-ব্যবসায়ী, মেরুদণ্ডহীন সাংবাদিক এবং নীতিনির্ধারকদের মধ্যে সমন্বয় করতে এই সংস্থা একটি বর্ম হিসেবে কাজ করে। এই খেলোয়াড়রাই আবার পর্যুদস্ত জগতের যাবতীয় দুঃখ-দুর্দশাকে উপর্যুপরি বাড়িয়ে তার মধ্য থেকে মুনাফা নিংড়ে নেয়। নানান ধরনের জালের মধ্যে মানুষকে আটকাতে চেষ্টা করে। মহামারি, জলবায়ু পরিবর্তন, গণবিলুপ্তির আতঙ্ককে পুঁজি করে তার অন্তরঙ্গ বন্ধু, ঘৃণ্য মোসাহেব এবং অনুগ্রহপ্রার্থীরা নানা কায়দায় সমস্যা আরও বাড়িয়ে দিয়ে গেটস উদ্ভাবিত নয়া প্রযুক্তিগুলোকে সমাধান হিসেবে উপস্থাপন করে এবং ফায়দা লোটে। এভাবে তিনি তার যাবতীয় প্রতিভার উন্মেষ ঘটান।

তার ব্যবসায়ের অংশীদার বৃহৎ ওষুধ কোম্পানি, নোংরা ও বিষাক্ত জ্বালানি উৎপাদক, জিএমও খাদ্য প্রস্তুতকারক, টেলিকম, বৃহৎ তথ্য-ব্যবসায়ী, মেরুদণ্ডহীন সাংবাদিক এবং নীতিনির্ধারকদের মধ্যে সমন্বয় করতে এই সংস্থা একটি বর্ম হিসেবে কাজ করে।

এমনকি তিনি আমাদের স্বাস্থ্য এবং খাদ্যব্যবস্থার ওপর তার নিয়ন্ত্রণ সংহত করতে উদ্যত হন। গেটস ‘বৈশ্বিক মানবিক অগ্রাধিকার’২৮৬-এর আড়ালে ডিজিটাল মুদ্রাব্যবস্থা চালু করেছেন (কিসিঞ্জারের শেষ সংযোজন, ‘যে অর্থব্যবস্থাকে নিয়ন্ত্রণ করে সে বিশ্বকে নিয়ন্ত্রণ করে’২৮৭)। তারই ধারাবাহিকতায় নজরদারির প্রক্রিয়া, মুনাফা এবং নিয়ন্ত্রণের স্বার্থে তিনি মাটি, মহাকাশভিত্তিক ও ফাইভজি অবকাঠামো, বিশাল তথ্য বিশ্লেষণ কেন্দ্র এবং বায়োম্যাট্রিক চিপসের মাধ্যমে আমাদের ব্যক্তিগত তথ্য কুক্ষিগত করতে যাবতীয় বিনিয়োগ করেন।২৮৮, ২৮৯

গেটস একটা স্যাটেলাইট বহর পাঠানোর পরিকল্পনা করছেন, যেগুলো গ্রহের প্রতিটি ইঞ্চির ওপর ২৪ ঘণ্টা নজরদারি করতে পারবে।২৯০ সন্দেহাতীতভাবে এই ধরনের ব্যবস্থায় জনগণের রাজনৈতিক এবং অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতা আসবে না। জনগণের ক্ষমতাকে ছিন্নভিন্ন করে ফেলবে, অল্প কিছু গোষ্ঠীর হাতে সম্পদ কেন্দ্রীভূত হবে এবং আশাহীন-অনাকাঙ্ক্ষিত জীবনে নিপতিত হবে বেশিরভাগ মানুষ। সর্বোপরি, মানবতা অন্ধকারে নিমজ্জিত হবে।

গণতন্ত্র এবং খামার স্বাধীনতা কর্মী ড. বন্দনা শিবা বলছেন, গেটসের হিতৈষী পুঁজিবাদিতা ‘আমাদের গ্রহের ভবিষ্যৎ বিলোপসাধন এবং বাস্তুসংস্থান ধ্বংসের সম্ভাবনাকে ত্বরান্বিত করছে’।২৯১ বীজ, কৃষি, খাদ্য, জ্ঞান এবং বৈশ্বিক স্বাস্থ্যব্যবস্থাকে করপোরেটের হাতে তুলে দিতে গেটস তার জনহিতকর পুঁজিবাদকে২৯২ কাজে লাগাচ্ছেন বলে তাকে দায়ী করেছেন শিবা। ‘গণতন্ত্রকে নির্মূল করতে এবং তথ্য সংগ্রহ করে তার নিজের মতো করে ব্যবহার করতে তিনি বিনিয়োগ করছেন। এসব করছেন তার ব্যক্তিগত ক্ষমতা এবং মুনাফার স্বার্থে।’

বিশ্বব্যাপী মানুষের জীবনের ওপর রাজত্ব প্রতিষ্ঠা করতে গেটস বৃহৎ পুঁজি, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিপ্রতিষ্ঠান এবং সরকারের সমন্বয়ে ক্ষমতাশালী এক ‘নোংরা জোট’২৯৩ গঠন করেছেন। একফসলি চাষ, মালিকানাস্বত্ব, একচেটিয়াকরণের মাধ্যমে প্রাকৃতিক জীববৈচিত্র্য, স্ব-সংগঠন এবং স্বাধীনতাকে পর্যুদস্ত করে তারা এই রাজত্ব বিস্তৃত করতে চাইছেন।২৯৪

‘আপনি দেখেছেন, জনস্বাস্থ্যের নামে ভ্যাকসিন নিয়ে তারা কী করতে পারে,’ শিবা আমাকে বলেছেন। ‘যাই হোক, তিনি এখন ভূমি নিয়ন্ত্রণ করছেন। বীজের নিয়ন্ত্রণ নিয়েছেন। তিনি খাদ্য নিয়ন্ত্রণ করছেন। আমাদের সবাইকে না-খাইয়ে মারার সর্বময় ক্ষমতা তিনি অর্জন করেছেন।’

রবার্ট এফ কেনেডি, জুনিয়র:২৯৫ ৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১: পরিবেশবিধ্বংসী প্রকল্পের বিরুদ্ধে আইনি লড়াই পরিচালনা করে থাকেন।

মেহেদী হাসান: লেখক, অনুবাদক। ইমেইল: mehedihassan1@gmail.com

তথ্যসূত্র:

  1. https://www.dailymail.co.uk/news/article-9050229/Bill-Gates-says-entering-worse-phase-COVID-pandemic-predicts-lockdowns-2022.html
  2. https://www.independentsciencenews.org/biotechnology/bill-gates-global-agenda-and-how-we-can-resist-his-war-on-life/
  3. https://sdgintegration.undp.org/accelerating-development-progressduring-covid-19
  4. https://www.msn.com/en-gb/news/world/coronavirus-linked-hunger-kills-10000-children-per-month-says-un/ar-BB17hwPq
  5. https://www.theguardian.com/technology/2020/dec/19/ten-billionaires-reap-400bn-boost-to-wealth-during-pandemic
  6. https://www.investopedia.com/articles/personal-finance/111214/where-does-bill-gates-keep-his-money.asp
  7. https://www.forbes.com/sites/sergeiklebnikov/2021/01/07/no-elon-musk-is-not-the-richest-person-in-the-world-yet/?sh=6dcf2bf87e98
  8. https://thedailycoin.org/2020/05/05/meet-bill-gates-health-monopolist/
  9. https://nonprofitquarterly.org/gates-foundation-trust-invests-in-private-prisons-again/
  10. https://www.peoplesworld.org/article/public-tools-for-public-schools-stopping-tech-giants-online-education-takeover/
  11. https://www.insidermonkey.com/blog/crown-castle-cci-a-dependable-reit-for-income-830514/
  12. https://moneywise.com/a/how-bill-gates-is-using-cryptocurrency-ripple-to-fight-global-poverty
  13. https://www.forbes.com/sites/mattperez/2020/03/18/bill-gates-calls-for-national-tracking-system-for-coronavirus-during-reddit-ama/?sh=1bb242da6a72
  14. https://cryptonews.com/news/bill-gates-backed-blockchain-ai-and-big-data-powered-virus-f-8999.htm
  15. https://www.cnbc.com/2019/06/03/bill-gates-and-travis-kalanick-invest-in-ai-chip-start-up-luminous.html
  16. https://landreport.com/2021/01/bill-gates-americas-top-farmland-owner/
  17. https://landreport.com/2021/01/bill-gates-americas-top-farmland-owner/
  18. https://www.marketwatch.com/story/bill-gates-is-now-the-largest-farmland-owner-in-america-11610818582
  19. https://www.forbes.com/sites/arielshapiro/2021/01/14/americas-biggest-owner-of-farmland-is-now-bill-gates-bezos-turner/?sh=326a622c6096
  20. https://landreport.com/2021/01/bill-gates-americas-top-farmland-owner/
  21. https://www.thelastamericanvagabond.com/bill-gates-web-dark-money-influence-part-1-philanthropic-narrative-shaping/
  22. https://regenerationinternational.org/2020/11/01/one-empire-over-seed-control-over-the-worlds-seed-banks/
  23. https://www.forbes.com/sites/oliviergarret/2020/09/10/why-bill-gates-is-betting-millions-on-synthetic-biology/?sh=384e870865c6
  24. https://documentcloud.adobe.com/link/track?uri=urn:aaid:scds:US:77a8708b-e097-4823-b65d-ef2c2e912029#pageNum=1
  25. https://www.reliableplant.com/Read/17069/kraft-foods-advances-its-sustainability-agenda-
  26. https://fortune.com/2016/10/10/tyson-foods-invests-beyond-meat/
  27. https://www.kelloggs.com/en_US/home.html
  28. https://www.bizjournals.com/cincinnati/blog/2012/11/bill-melinda-gates-foundation-buys.html
  29. https://markets.businessinsider.com/news/stocks/gates-foundation-bought-apple-amazon-google-stock-first-quarter-2020-5-1029234223
  30. https://documentcloud.adobe.com/link/track?uri=urn%3Aaaid%3Ascds%3AUS%3A77a8708b-e097-4823-b65d-ef2c2e912029#pageNum=1
  31. https://childrenshealthdefense.org/defender_category/big-chemical/
  32. https://www.worldatlas.com/articles/which-are-the-wealthiest-charitable-foundations-worldwide.html
  33. https://www.independentsciencenews.org/commentaries/gates-ag-one-the-recolonisation-of-agriculture/
  34. https://www.latimes.com/news/la-na-gatesx07jan07-story.html
  35. https://www.bloomberg.com/news/articles/2018-01-29/tyson-joins-bill-gates-cargill-to-invest-in-lab-meat-producer
  36. https://quotefancy.com/quote/1275693/Henry-Kissinger-Who-controls-the-food-supply-controls-the-people-who-controls-the-energy
  37. https://www.oaklandinstitute.org/sites/oaklandinstitute.org/files/olob-bmgf-factsheet.pdf
  38. https://usrtk.org/our-investigations/gates-foundations-failing-green-revolution-in-africa-new-report/
  39. https://www.oaklandinstitute.org/sites/oaklandinstitute.org/files/unholy_alliance_web.pdf
  40. https://www.oaklandinstitute.org/sites/oaklandinstitute.org/files/olob-bmgf-factsheet.pdf
  41. http://www.ipes-food.org/_img/upload/files/Gates%20Foundation_MoneyFlows%20Fact%20Sheet.pdf
  42. https://theecologist.org/2014/nov/05/gates-foundation-feeds-world-corporate-agriculture
  43. https://www.japantimes.co.jp/opinion/2020/10/23/commentary/world-commentary/green-revolution-harming-africa/
  44. https://www.oaklandinstitute.org/sites/oaklandinstitute.org/files/unholy_alliance_web.pdf
  45. https://www.rosalux.de/en/publication/id/42635/false-promises-the-alliance-for-a-green-revolution-in-africa-agra
  46. https://www.independentsciencenews.org/commentaries/gates-ag-one-the-recolonisation-of-agriculture/
  47. https://grassrootsonline.org/in-the-news/fighting-bill-gates-for-the-future-of-food/
  48. https://www.rosalux.de/en/publication/id/42635/false-promises-the-alliance-for-a-green-revolution-in-africa-agra
  49. https://www.grain.org/en/article/6499-false-promises-the-alliance-for-a-green-revolution-in-africa-agra
  50. https://www.rosalux.de/en/publication/id/42635/false-promises-the-alliance-for-a-green-revolution-in-africa-agra
  51. https://theecologist.org/2014/nov/05/gates-foundation-feeds-world-corporate-agriculture
  52. https://www.theguardian.com/global-development/poverty-matters/2010/sep/29/gates-foundation-gm-monsanto
  53. https://withinthesepagesliesthetruth.wordpress.com/tag/bill-gates/
  54. https://geneticliteracyproject.org/2014/04/29/guardians-john-vidal-attacks-gates-foundation-for-links-to-monsanto-and-cargill-on-site-funded-by-gates-foundation/
  55. https://research-api.cbs.dk/ws/portalfiles/portal/58521170/Corporate_scramble_full_paper_Haakonsson_Gammelgaard_and_Just_EGOS2017.pdf
  56. https://cagj.org/agra-watch/
  57. https://www.seattletimes.com/seattle-news/gates-foundation-ties-with-monsanto-under-fire-from-activists/
  58. https://childrenshealthdefense.org/defender/gates-global-empire-threatens-life/
  59. https://www.telegraph.co.uk/technology/2018/04/19/bill-gates-backs-1bn-plan-cover-earth-video-surveillance-satellites/
  60. https://www.forbes.com/sites/arielcohen/2021/01/11/bill-gates-backed-climate-solution-gains-traction-but-concerns-linger/?sh=71418be2793b
  61. https://www.nature.com/articles/d41586-018-07533-4
  62. https://www.forbes.com/sites/arielcohen/2021/01/11/bill-gates-backed-climate-solution-gains-traction-but-concerns-linger/?sh=5d5080d1793b
  63. https://www.nature.com/articles/d41586-018-07533-4
  64. https://voi.id/en/bernas/20052/bill-gates-controversial-genetically-engineered-mosquito-comes-true#:~:text=JAKARTA%20%2D%20Bill%20Gates’%20genetic%20mosquito,this%20project%20since%20its%20inception.
  65. https://www.belfercenter.org/sites/default/files/2020-06/AfricaCovid.pdf
  66. https://shareverything.com/2016/05/23/kissinger-control-food-and-you-control-the-people/
  67. https://www.independentsciencenews.org/commentaries/gates-ag-one-the-recolonisation-of-agriculture/
  68. https://www.theguardian.com/environment/2015/mar/19/gates-foundation-has-14bn-in-fossil-fuels-investments-guardian-analysis
  69. https://www.theguardian.com/technology/2021/jan/09/bill-gates-joins-blackstone-in-bid-to-buy-british-private-jet-firm#
  70. https://marketmadhouse.com/bill-gates-right-canadian-national-railway/
  71. https://www.trainorders.com/discussion/read.php?2,2541658
  72. https://www.csx.com/index.cfm/customers/commodities/coal/
  73. https://childrenshealthdefense.org/news/the-brave-new-world-of-bill-gates-and-big-telecom/
  74. https://www.greenamerica.org/gmos-stop-ge-wheat/better-sources-wheat-genetic-engineering-gmos-organic-food-farmers-stop-ge-wheat/genetic-engineering-gmos
  75. https://m.facebook.com/graciouslivinglifestyle/photos/a.243857305705805/3366640153427489/?type=3&locale2=ne_NP
  76. https://m.facebook.com/graciouslivinglifestyle/photos/a.243857305705805/3366640153427489/?type=3&locale2=ne_NP
  77. https://www.forbes.com/sites/arielshapiro/2021/01/14/americas-biggest-owner-of-farmland-is-now-bill-gates-bezos-turner/?sh=326a622c6096
  78. https://www.forbes.com/sites/arielshapiro/2021/01/14/americas-biggest-owner-of-farmland-is-now-bill-gates-bezos-turner/?sh=326a622c6096
  79. https://www.forbes.com/sites/arielshapiro/2021/01/14/americas-biggest-owner-of-farmland-is-now-bill-gates-bezos-turner/?sh=326a622c6096
  80. https://www.forbes.com/sites/arielshapiro/2021/01/14/americas-biggest-owner-of-farmland-is-now-bill-gates-bezos-turner/?sh=326a622c6096
  81. https://www.independentsciencenews.org/biotechnology/bill-gates-global-agenda-and-how-we-can-resist-his-war-on-life/
  82. https://www.independentsciencenews.org/commentaries/gates-ag-one-the-recolonisation-of-agriculture/
  83. https://www.navdanya.org/site/
  84. http://www.fao.org/fileadmin/templates/est/Investment/Agriculture_at_a_Crossroads_Global_Report_IAASTD.pdf
  85. https://www.researchgate.net/publication/258099731_Agriculture_at_a_Crossroads_The_Global_Report
  86. http://www.ecofriendlyshelters.org/index.php/news-stay-up-to-date/727-why-bill-gates-owns-500-000-shares-of-monsanto
  87. http://www.fao.org/fileadmin/templates/est/Investment/Agriculture_at_a_Crossroads_Global_Report_IAASTD.pdf
  88. http://www.fao.org/fileadmin/templates/est/Investment/Agriculture_at_a_Crossroads_Global_Report_IAASTD.pdf
  89. http://www.fao.org/fileadmin/templates/est/Investment/Agriculture_at_a_Crossroads_Global_Report_IAASTD.pdf
  90. https://www.tandfonline.com/doi/abs/10.1080/14747731.2014.957586
  91. https://www.forestaction.org/app/webroot/vendor/tinymce/editor/plugins/filemanager/files/JFL%20VOl%2012%20(1)/Adhikari.pdf
  92. https://www.berghahnjournals.com/view/journals/environment-and-society/2/1/air-es020106.xml
  93. https://www.tandfonline.com/doi/abs/10.1080/14747731.2011.544203
  94. https://www.greenamerica.org/gmos-stop-ge-wheat/genetic-engineering-gmos/gmos-dont-feed-world
  95. https://www.beckershospitalreview.com/pharmacy/gates-foundation-world-s-largest-vaccine-maker-to-make-low-cost-covid-19-vaccine.html
  96. https://www.organicconsumers.org/news/one-empire-over-seed-control-over-worlds-seed-banks#footnote11
  97. https://www.history.com/topics/pre-history/neolithic-revolution
  98. https://www.cgiar.org/the-genebank-platform/
  99. https://www.organicconsumers.org/news/one-empire-over-seed-control-over-worlds-seed-banks#footnote11
  100. https://regenerationinternational.org/2020/11/01/one-empire-over-seed-control-over-the-worlds-seed-banks/
  101. https://www.gatesfoundation.org/Media-Center/Press-Releases/2020/01/Gates-Foundation-Statement-on-Creation-of-Nonprofit-Agricultural-Research-Institute
  102. https://www.counterpunch.org/2020/03/02/toxic-agriculture-and-the-gates-foundation/
  103. https://www.independentsciencenews.org/commentaries/gates-ag-one-the-recolonisation-of-agriculture/
  104. https://childrenshealthdefense.org/defender/bayer-2b-deal-roundup-cancer-claims/
  105. https://www.independentsciencenews.org/commentaries/gates-ag-one-the-recolonisation-of-agriculture/
  106. https://regenerationinternational.org/2020/11/01/one-empire-over-seed-control-over-the-worlds-seed-banks/
  107. https://regenerationinternational.org/2020/11/01/one-empire-over-seed-control-over-the-worlds-seed-banks/
  108. https://regenerationinternational.org/2020/11/01/one-empire-over-seed-control-over-the-worlds-seed-banks/
  109. https://regenerationinternational.org/2020/11/01/one-empire-over-seed-control-over-the-worlds-seed-banks/
  110. https://www.iatp.org/blog/202010/agricultural-revolution-gates-foundation-leading-africa-failure
  111. https://magnetrack.klangoo.com/v1.1/track.ashx?e=AP_RA_CLK&p=5736504&d=5704895&c=c787d455-1fd6-444b-abe0-3f9cf6dff8ef&u=35a6fcc0-d1f6-4800-b85c-5581ed6ff636&l=https%3A%2F%2Fwww.globalresearch.ca%2Fbill-gates-neo-feudalism-closer-look-farmer-bill%2F5736504&redir=https%3A%2F%2Fwww.globalresearch.ca%2Ftoxic-agriculture-gates-foundation%2F5704895%3Futm_campaign%3Dmagnet%26utm_source%3Darticle_page%26utm_medium%3Drelated_articles
  112. https://www.iatp.org/blog/202010/agricultural-revolution-gates-foundation-leading-africa-failure
  113. https://childrenshealthdefense.org/defender/gates-global-agriculture/
  114. https://www.cbd.int/
  115. https://bch.cbd.int/protocol/
  116. https://regenerationinternational.org/2020/11/01/one-empire-over-seed-control-over-the-worlds-seed-banks/
  117. https://www.gatesnotes.com/About-Bill-Gates/A-Conversation-with-Bill-Gates-GMOs
  118. https://www.geekwire.com/2020/bill-gates-thinks-gene-editing-artificial-intelligence-save-world/
  119. https://www.fiercebiotech.com/r-d/gates-backs-a-120m-breakout-round-for-crispr-cas9-pioneers-at-editas
  120. https://gabio.org/two-female-crispr-scientists-make-history-winning-nobel-prize-in-chemistry-for-genome-editing-discovery/
  121. https://www.theguardian.com/global-development/poverty-matters/2010/sep/29/gates-foundation-gm-monsanto
  122. https://childrenshealthdefense.org/defender_category/big-food/
  123. https://cagj.org/2020/04/the-nation-bill-gatess-charity-paradox/
  124. https://cagj.org/2020/04/the-nation-bill-gatess-charity-paradox/
  125. https://cagj.org/2020/04/the-nation-bill-gatess-charity-paradox/
  126. https://www.cjr.org/criticism/gates-foundation-journalism-funding.php
  127. https://www.cjr.org/criticism/gates-foundation-journalism-funding.php
  128. https://www.youtube.com/watch?v=pF752acTijY&t=805s
  129. https://www.youtube.com/watch?v=VVapO-ynD7k
  130. https://www.youtube.com/watch?v=7ljBjmVMTSk
  131. https://www.youtube.com/watch?v=tDjQ8ivwbCU
  132. https://www.youtube.com/watch?v=_Q8D1tdpeIU
  133. https://peoplesassembly.net/bt-cotton-failure-case-witnesses-from-india-and-burkina-faso/
  134. https://www.ucsusa.org/resources/rise-superweeds
  135. https://childrenshealthdefense.org/defender/gates-global-agriculture/
  136. https://www.nature.com/articles/d41586-018-05814-6
  137. https://navdanyainternational.org/wp-content/uploads/2020/10/GATES-TO-A-GLOBAL-EMPIRE-FULL-REPORT-13.10.2020-3.pdf
  138. https://www.ecowatch.com/is-bill-gates-right-about-gmos-1882198150.html
  139. https://www.boell.de/https://www.boell.de/de/die-gene-drive-files
  140. https://www.synbiowatch.org/2017/12/the-gene-drive-files/?lores
  141. http://genedrivefiles.synbiowatch.org/
  142. http://genedrivefiles.synbiowatch.org/2017/12/01/gates_foundation_pr/
  143. https://www.nature.com/articles/d41586-019-02087-5
  144. https://www.geekwire.com/2020/bill-gates-thinks-gene-editing-artificial-intelligence-save-world/
  145. http://www.crisprtx.com/gene-editing/crispr-cas9#:~:text=CRISPR%2FCas9%20edits%20genes%20by,revolutionary%20technology%20into%20transformative%20therapies.
  146. https://www.pnas.org/content/116/16/7692#:~:text=Critics%20and%20groups%20that%20are,nefarious%20uses%20of%20gene%20drive.
  147. https://abcnews.go.com/International/genetically-modified-pests-controversial-release-suicide-mosquitoes/story?id=15491526
  148. https://www.gatesfoundation.org/Media-Center/Press-Releases/2000/07/London-School-of-Hygiene-Tropical-Medicine
  149. https://futurism.com/bill-gates-doubles-down-on-eradicating-mosquitoes-with-genetic-engineering
  150. https://childrenshealthdefense.org/defender/truth-rfk-jr-david-martin-fauci-moderna-vaccine/
  151. https://www.statnews.com/2016/03/30/mosquitoes-debate-eradicate/
  152. https://www.pnas.org/content/116/16/7692#:~:text=Critics%20and%20groups%20that%20are,nefarious%20uses%20of%20gene%20drive.
  153. https://www.pnas.org/content/116/16/7692#:~:text=Critics%20and%20groups%20that%20are,nefarious%20uses%20of%20gene%20drive.
  154. https://geneticliteracyproject.org/2019/01/08/crispr-super-soldiers-why-we-need-international-gene-editing-rules/
  155. https://med.nyu.edu/highschoolbioethics/sites/default/files/highschoolbioethics/Genetic%20Editing%20Module.pdf
  156. https://eandt.theiet.org/content/articles/2017/12/darpa-invests-100-million-in-gene-drive-technology/#:~:text=The%20US%20Defense%20Advanced%20Research,editing%20to%20favour%20particular%20genes.
  157. https://www.nature.com/articles/d41586-019-02087-5#ref-CR12
  158. https://www.etcgroup.org/content/driven-extinction
  159. https://www.cbd.int/conferences/2016
  160. https://foe.org/news/2016-08-genetic-extinction-technology-rejected-by-international-group-of-scientists
  161. https://www.synbiowatch.org/2017/12/the-gene-drive-files/?lores
  162. https://foe.org/news/military-revealed-top-funder-gene-drives-gates-foundation-paid-1-6-million-influence-un-gene-drives/
  163. https://www.etcgroup.org/sites/www.etcgroup.org/files/files/gene_drives_navdanya.pdf
  164. https://www.synbiowatch.org/2017/12/the-gene-drive-files/?lores
  165. https://www.sciencedirect.com/science/article/pii/S0167779919301337
  166. https://www.independentsciencenews.org/news/gates-foundation-hired-pr-firm-to-manipulate-un-over-gene-drives/
  167. https://www.theguardian.com/science/political-science/2016/jun/09/the-national-academies-gene-drive-study-has-ignored-important-and-obvious-issues
  168. https://www.etcgroup.org/content/gene-drive-fileshttps://www.etcgroup.org/content/gene-drive-files
  169. https://www.sciencemag.org/news/2017/12/there-really-covert-manipulation-un-discussions-about-regulating-gene-drives
  170. https://www.etcgroup.org/sites/www.etcgroup.org/files/files/gene_drives_navdanya.pdf
  171. https://childrenshealthdefense.org/defender/fda-science-food-safety-at-risk/
  172. https://childrenshealthdefense.org/defender/pesticides-epa-should-ban-restrict-protect-infants-children/
  173. https://www.greenbiz.com/article/gmos-robots-fight-over-future-food-here
  174. https://childrenshealthdefense.org/defender/glyphosate-increased-disease-subsequent-generations/
  175. https://citybugs.tamu.edu/factsheets/ipm/what-is-a-neonicotinoid/
  176. https://www.independent.co.uk/climate-change/news/american-songbirds-are-being-wiped-out-by-banned-pesticides-804547.html
  177. https://www.theguardian.com/environment/2019/feb/10/plummeting-insect-numbers-threaten-collapse-of-nature
  178. https://childrenshealthdefense.org/news/chronically-ill-children-who-is-sounding-the-alarm/
  179. https://childrenshealthdefense.org/defender/roundup-weedkiller-disrupts-gut-microbiome-new-study/
  180. https://en.wikiquote.org/wiki/The_Impact_of_Science_on_Society
  181. https://www.livekindly.co/bill-gates-says-eat-vegan/
  182. https://techcrunch.com/2020/10/01/motif-foodworks-preps-commercial-production-for-its-first-ingredient-improving-the-flavor-of-beef-substitutes/
  183. https://www.total.com/news/breakthrough-energy-ventures-bill-gates-talks-about-fund
  184. https://www.cnbc.com/2020/06/16/biomilq-raises-3point5-million-from-bill-gates-investment-firm.html
  185. https://www.cnn.com/2021/01/26/business/billionaire-wealth-inequality-poverty/index.html
  186. https://www.nbcnews.com/news/us-news/8-million-americans-slipped-poverty-amid-coronavirus-pandemic-new-study-n1243762
  187. https://techcrunch.com/2019/02/26/with-90-million-in-funding-the-ginkgo-spinoff-motif-joins-the-fight-for-the-future-of-food/
  188. https://thebeet.com/bill-gates-eats-a-plant-based-burger-reveals-the-next-major-industries-ripe-for-disruption/
  189. https://thebeet.com/bill-gates-eats-a-plant-based-burger-reveals-the-next-major-industries-ripe-for-disruption/
  190. https://www.geekwire.com/2017/bill-gates-invests-veggie-burger-bleeds-like-beef-feed-masses-save-planet/
  191. https://d3n8a8pro7vhmx.cloudfront.net/yesmaam/pages/8069/attachments/original/1557958339/COA_S0004900_Impossible_Burger_and_Beyond_Meat_patty_-_glyphosate.pdf?1557958339
  192. https://www.soil4climate.org/
  193. https://sethitzkan.medium.com/opinion-software-to-swallow-impossible-foods-should-be-called-impossible-patents-71805ecec9de#:~:text=Impossible%20Foods%20should%20really%20be,proxies%20from%20chicken%20to%20fish.&text=In%20this%20software%2Das%2Dfood,is%20no%20place%20for%20nature.
  194. https://www.memphismeats.com/
  195. https://www.bloomberg.com/press-releases/2020-01-24/meat-substitutes-market-worth-3-5-billion-by-2026-exclusive-report-by-marketsandmarkets
  196. https://www.bloomberg.com/press-releases/2020-01-24/meat-substitutes-market-worth-3-5-billion-by-2026-exclusive-report-by-marketsandmarkets
  197. https://www.cnbc.com/2020/06/16/biomilq-raises-3point5-million-from-bill-gates-investment-firm.html
  198. https://www.cnbc.com/2020/06/16/biomilq-raises-3point5-million-from-bill-gates-investment-firm.html
  199. https://www.kff.org/global-health-policy/fact-sheet/the-u-s-and-gavi-the-vaccine-alliance/
  200. https://documentcloud.adobe.com/link/track?uri=urn:aaid:scds:US:cf3a6f73-5268-4773-9d73-6d4817aea96c
  201. http://www.fao.org/news/story/en/item/1263404/icode/
  202. https://www.gatesfoundation.org/How-We-Work/Quick-Links/Grants-Database/Grants/2014/06/OPP1103948
  203. https://www.gatesfoundation.org/How-We-Work/Quick-Links/Grants-Database/Grants/2014/06/OPP1103948
  204. https://www.businessinsider.com.au/jason-drew-magmeal-farm-in-south-africa-2015-2
  205. https://www.pe.com/2019/12/12/a-maggot-farm-that-upcycles-food-waste-is-coming-to-southern-california/
  206. https://www.ran.org/the-understory/tyson_foods/
  207. https://www.thenation.com/article/society/bill-gates-foundation-philanthropy/
  208. https://www.weforum.org/
  209. https://www.weforum.org/about/klaus-schwab/
  210. https://www.amazon.com/COVID-19-Great-Reset-Klaus-Schwab/dp/2940631123
  211. https://www.youtube.com/watch?v=DllYfbvbsTU
  212. https://www.weforum.org/agenda/2020/06/great-reset-launch-prince-charles-guterres-georgieva-burrow/
  213. https://eatforum.org/
  214. https://eatforum.org/about/who-we-are/
  215. https://www.gatesfoundation.org/How-We-Work/Quick-Links/Grants-Database/Grants/2014/10/OPP1120885
  216. https://www.wbcsd.org/Programs/Food-and-Nature/Food-Land-Use/FReSH/News/25-leading-global-companies-join-together-to-accelerate-transformational-change-in-global-food-systems
  217. https://www.wbcsd.org/Programs/Food-and-Nature/Food-Land-Use/FReSH/News/25-leading-global-companies-join-together-to-accelerate-transformational-change-in-global-food-systems
  218. https://childrenshealthdefense.org/defender/world-economic-forums-great-reset-plan-for-big-food-benefits-industry-not-people/
  219. https://eatforum.org/learn-and-discover/unicef-and-eat-announce-collaboration/
  220. https://www.iastatedigitalpress.com/mmb/article/id/9456/
  221. https://childrenshealthdefense.org/defender/world-economic-forums-great-reset-plan-for-big-food-benefits-industry-not-people/
  222. https://childrenshealthdefense.org/defender/world-economic-forums-great-reset-plan-for-big-food-benefits-industry-not-people/
  223. http://sitn.hms.harvard.edu/flash/2015/roundup-ready-crops/
  224. https://www.wsj.com/articles/SB1020886090206568560
  225. https://www.gatesfoundation.org/Media-Center/Press-Releases/2002/05/CostEffective-Food-Fortification-Initiatives
  226. https://dasa2017blog.files.wordpress.com/2017/08/becker_salt-sugar-fat.pdf
  227. https://theecologist.org/2003/dec/01/smithfield-foods-truth-behind-its-pigs-and-factories
  228. https://documentcloud.adobe.com/link/track?uri=urn:aaid:scds:US:59a5717e-d078-472d-931f-aa5034f425f1
  229. https://www.gainhealth.org/homepage
  230. https://www.gainhealth.org/about/strategy
  231. https://www.wsj.com/articles/SB1020886090206568560
  232. https://www.gavi.org/
  233. https://pubmed.ncbi.nlm.nih.gov/28188123/
  234. https://www.simonandschuster.com/books/Thimerosal-Let-the-Science-Speak/Robert-F-Kennedy/9781634504423
  235. https://news.un.org/en/story/2002/05/34802-new-alliance-aims-improve-childrens-nutrition-unicef-lauds-effort
  236. https://www.gainhealth.org/financials/donors
  237. https://www.gainhealth.org/financials/donors
  238. https://corpwatch.org/article/gates-foundation-urged-keep-philip-morris-out-nutrition-initiative
  239. https://my.clevelandclinic.org/staff/19048-mark-hyman
  240. https://drhyman.com/blog/2012/02/29/how-malnutrition-causes-obesity/
  241. https://www.foodpolitics.com/about/
  242. https://steinhardt.nyu.edu/people/marion-nestle
  243. https://www.foodpolitics.com/food-politics-how-the-food-industry-influences-nutrition-and-health/
  244. https://fortune.com/2020/06/26/enko-chem-ai-bill-gates-backed-agtech/
  245. https://www.cnbc.com/2018/02/16/bill-gates-artificial-intelligence-is-good-for-society.html
  246. https://documentcloud.adobe.com/link/track?uri=urn:aaid:scds:US:0a63c0ad-9919-404b-9a2b-634944bbfc3d
  247. https://truthcomestolight.com/author/cwestbrook/
  248. http://www.loostales.com/
  249. https://thenextweb.com/hardfork/2020/05/26/bill-gates-foundation-tech-stocks-portfolio-amazon-twitter-alibaba-apple-schrodinger/
  250. https://abc.xyz/
  251. https://www.theverge.com/2020/10/12/21513353/alphabet-google-x-lab-moonshot-computational-agriculture-mineral-revealed
  252. https://www.theverge.com/2020/10/12/21513353/alphabet-google-x-lab-moonshot-computational-agriculture-mineral-revealed
  253. https://www.inceptivemind.com/alphabet-mineral-moonshot-benefit-robots-sustainable-farming/15690/
  254. https://www.inc.com/tracy-leigh-hazzard/why-did-bezos-do-it-an-inside-look-at-whole-foods-amazon.html
  255. https://markets.businessinsider.com/news/stocks/gates-foundation-bought-apple-amazon-google-stock-first-quarter-2020-5-1029234223
  256. https://www.geekwire.com/2019/jeff-bezos-backed-vertical-agriculture-startup-plenty-hibernates-plans-seattle-farm/
  257. https://gmofreeusa.org/about-us/staff/howard-vlieger/
  258. https://www.climateone.org/people/nicolette-hahn-niman
  259. https://regenerationinternational.org/
  260. https://gmofreeusa.org/about-us/staff/howard-vlieger/
  261. https://www.foreignaffairs.com/articles/2012-03-06/money-or-die
  262. https://www.usnews.com/news/national-news/articles/2019-01-16/who-names-vaccine-hesitancy-as-top-world-threat-in-2019#:~:text=WHO%20named%20vaccine%20hesitancy%2C%20the,in%20the%20listing%2C%20among%20others.
  263. https://schiff.house.gov/news/press-releases/schiff-sends-letter-to-google-facebook-regarding-anti-vaccine-misinformation
  264. https://markets.businessinsider.com/news/stocks/gates-foundation-bought-apple-amazon-google-stock-first-quarter-2020-5-1029234223
  265. https://www.geekwire.com/2020/hidden-history-microsoft-facebook-says-social-networks-future/
  266. https://www.marktaliano.net/this-is-why-you-cant-trust-the-fact-checkers-by-derrick-broze-the-last-american-vagabond-11-may-2020/
  267. https://www.instagram.com/p/CIj3F0Rlsqs/
  268. https://www.instagram.com/p/CIj3F0Rlsqs/
  269. https://www.who.int/immunization/global_vaccine_action_plan/DoV_GVAP_2012_2020/en/
  270. https://www.federalregister.gov/documents/2020/03/17/2020-05484/declaration-under-the-public-readiness-and-emergency-preparedness-act-for-medical-countermeasures
  271. https://www.unscn.org/en/news-events/upcoming-events?idnews=1940
  272. https://www.gatesfoundation.org/How-We-Work/Quick-Links/Grants-Database/Grants/2014/06/OPP1103948
  273. https://www.weforum.org/press/2020/06/the-great-reset-a-unique-twin-summit-to-begin-2021/#:~:text=Geneva%2C%20Switzerland%2C%203%20June%202020,Economic%20Forum%20in%20January%202021.
  274. https://cagj.org/wp-content/uploads/The-Man-Behind-the-Curtain-The-Gates-Foundations-Influence-on-the-UN-Food-Systems-Summit-1.pdf
  275. https://cagj.org/wp-content/uploads/The-Man-Behind-the-Curtain-The-Gates-Foundations-Influence-on-the-UN-Food-Systems-Summit-1.pdf
  276. https://agra.org/zt_team/dr-agnes-kalibata-2/
  277. https://www.un.org/sg/en/content/sg/personnel-appointments/2019-12-16/ms-agnes-kalibata-of-rwanda-special-envoy-for-2021-food-systems-summit
  278. https://www.oneplanetnetwork.org/sfs-programme-and-un-special-envoy-draw-path-towards-2021-un-food-systems-summit
  279. https://documentcloud.adobe.com/link/track?uri=urn:aaid:scds:US:80c928ff-c904-46d3-aa30-5d414c6d37b2
  280. https://en.wikipedia.org/wiki/Bill_%26_Melinda_Gates_Foundation
  281. https://www.newsweek.com/bill-gates-jeff-bezos-amazon-microsoft-wealth-net-worth-1467702#:~:text=So%20far%2C%20their%20foundation%20has,of%20the%20couple’s%20total%20wealth.&text=It%20was%20they%20who%20founded,of%20their%20wealth%20to%20charity.
  282. https://nfpsynergy.net/oh-patron-and-all-carry-can-fame-cost-fortune
  283. https://www.gatesfoundation.org/Media-Center/Press-Releases/2020/09/Commitments-to-Expanded-Global-Access-for-COVID-19-Diagnostics-Therapeutics-and-Vaccines
  284. http://techrights.org/2010/04/12/monopolising-research-and-profiting/
  285. http://techrights.org/2010/04/12/monopolising-research-and-profiting/
  286. https://www.globalcitizen.org/en/content/bill-gates-cryptocurrency-poverty/
  287. https://quotefancy.com/quote/1275693/Henry-Kissinger-Who-controls-the-food-supply-controls-the-people-who-controls-the-energy
  288. https://childrenshealthdefense.org/news/the-brave-new-world-of-bill-gates-and-big-telecom/
  289. https://www.universityofcalifornia.edu/news/microchips-can-permanently-link-patients-clinical-samples
  290. https://returntonow.net/2020/03/24/bill-gates-backs-1-billion-plan-to-blanket-earth-in-video-surveillance-satellites/?fbclid=IwAR1NbLzHi1LaSVQgUmlW3DPJy92do8uEoTqj-N20XqeP06p_UZ7anvpDB8A
  291. https://www.independentsciencenews.org/biotechnology/bill-gates-global-agenda-and-how-we-can-resist-his-war-on-life/
  292. https://childrenshealthdefense.org/news/bill-gates-global-agenda-defend-humanity/
  293. https://documentcloud.adobe.com/link/track?uri=urn:aaid:scds:US:0d96bc8a-cee0-4f82-a4fd-89ed18b451f3#pageNum=1
  294. https://documentcloud.adobe.com/link/track?uri=urn:aaid:scds:US:0a63c0ad-9919-404b-9a2b-634944bbfc3d
  295. https://www.globalresearch.ca/author/robert-f-kennedy-jr
Social Share
  • 610
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    610
    Shares
  •  
    610
    Shares
  • 610
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *